advertisement
আপনি পড়ছেন

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কথিত বান্ধবী, ব্যবসায়ী, সামরিক কর্মকর্তাসহ দুই ডজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষিতে সর্বশেষ কালো তালিকাভুক্ত করার খবরটি গতকাল মঙ্গলবার জানায় দেশটি। খবর আরব নিউজ ও ব্যাংকক পোস্ট।

putins girlfriendপুতিনের কথিত বান্ধবী আলিনা কাবায়েভা

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয়ের করা এ তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে পুতিনের সহযোগী এবং বিলিয়নিয়ার আন্দ্রে গ্রিগোরিভিচ গুরিয়েভকে, যিনি বাকিংহাম প্যালেসের পরে লন্ডনের দ্বিতীয় বৃহত্তম এস্টেট উইটানহার্স্ট এস্টেটের মালিক। তিনি বিশ্বব্যাপী সার বাজারের প্রধান সরবরাহকারী ফোসএগ্রোর প্রতিষ্ঠাতা এবং সাবেক ডেপুটি চেয়ারম্যান।

এর আগেও গুরিয়েভ ও তার ছেলের ওপর আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ব্যবসা জব্দ এবং মার্কিন ব্যাংকগুলোতে তাদের লেনদেন নিষিদ্ধ করা হয়। মার্কিন অর্থ বিভাগ গুরিয়েভের ৮১ মিটার দৈর্ঘ্যের ইয়ট আলফা নিরোকেও কালো তালিকাভুক্ত করেছে। তারা বলছে, জব্দ হওয়া এড়াতে ইয়টটি তার অবস্থান ট্র্যাকিং হার্ডওয়্যারটি বন্ধ করে দিয়েছে।

us sanctionরাশিয়ার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

সবশেষ নিষেধাজ্ঞায় ভিক্টর ফিলিপোভিচ রাশনিকভ, দিমিত্রি আলেকসান্দ্রোভিচ পুম্পিয়ানস্কি, আন্দ্রে ইগোরেভিচ মেলনিচেঙ্কো এবং আলেকজান্ডার আনাতোলেভিচ পোনোমারেঙ্কোসহ পুতিনের ঘনিষ্ঠ কয়েকজন ব্যবসায়ী, ইউক্রেনের দখলকৃত অঞ্চলগুলো পরিচালনা করা রাশিয়ার চার কর্মকর্তা এবং রাষ্ট্র-সমর্থিত ইলেকট্রনিক্স সংস্থাগুলোসহ প্রায় দুই ডজন উচ্চ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ও কোম্পানিকে যুক্ত করা হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞায় পুতিনের বান্ধবী হিসাবে বর্ণনা করা প্রাক্তন অলিম্পিক জিমন্যাস্ট আলিনা কাবায়েভা এবং রাশিয়ান সরকারের বিশাল সার্বভৌম সম্পদ তহবিলের ব্যবস্থাপক কিরিল দিমিত্রিয়েভের স্ত্রী নাটালিয়া পপোভাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়াও প্রায় ৯০০ রুশ কর্মকর্তাকে মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার তালিকায় রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ৩১ জন অনামী অ-রাশিয়ান কর্মকর্তা রয়েছেন, যারা ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার দখলকে সমর্থন করেছেন।

মার্কিন অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন এক বিবৃতিতে বলেছেন, রাশিয়ার অবৈধ আগ্রাসনে নিরপরাধ সাধারণ মানুষ ভুগছে, অথচ এর মধ্য দিয়ে পুতিনের মিত্ররা নিজেদের সমৃদ্ধ করেছে এবং উন্নত জীবন পরিচালনা করছে। সুতরাং এ যুদ্ধের জন্য দায়ী রাশিয়ার অভিজাত সম্প্রদায় এবং ক্রেমলিনের সামরিক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নেবে।