advertisement
আপনি পড়ছেন

১৯৩০ সালে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়েছিল ফুটবল বিশ্বকাপ। ২০৩০ সালে শতবর্ষে পদার্পণ করবে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। তাৎপর্যপূর্ণ সে আসরের যৌথ আয়োজক হতে চায় লিওনেল মেসি, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াদের দেশ আর্জেন্টিনা। এজন্য ইতোমধ্যে প্রস্তাব দিয়েছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন, এএফএ। তথ্যটি নিশ্চিত করেছে ইউরোস্পোর্ট।

world cup trophy 1বিশ্বকাপ ট্রফি

১৯৩০ সালের বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ ছিল উরুগুয়ে। সেবার ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলেছিল স্বাগতিকরা। শতবর্ষের আয়োজক হতে এই দুই দেশের পাশাপাশি বিড জমা দিয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার আরও দুই দেশ চিলি এবং প্যারাগুয়ে। অর্থ্যাৎ বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা রাজি থাকলে ২০৩০ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে চার দেশের যৌথ আয়োজনে।

বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসরটির আয়োজক হতে আশাবাদী দক্ষিণ আমেরিকা ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা, কনমেবল। সংস্থাটির সভাপতি আলেক্সান্ডার ডমিনগেজ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এই মহাদেশের স্বপ্ন হলো বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসরের আয়োজক হওয়া। সামনে হয়তো অনেক বিশ্বকাপ আসবে যাবে। কিন্তু শতবর্ষী বিশ্বকাপ তো একটাই। এটা বিচেবনা করে আমাদের মহাদেশকে সুযোগটা দেওয়া উচিত।’

এ বিষয়ে উরুগুইয়ান ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট ইগনাসিও আলোনসো বলেন, ‘১০০ বছর পর বিশ্বকাপ সেখানেই হওয়া উচিত যেখানে এই আসর শুরু হয়েছিল।’

আসন্ন বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার। ২০২৬ বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে উত্তর আমেরিকার দুই দেশ কানাডা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক হতে আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে, চিলি, প্যারাগুয়ের সামনে বড় বাঁধা হবে স্পেন এবং পর্তুগাল। কারণ ইউরোপের দুই জায়ান্টও শতবর্ষী আসরের আয়োজক হতে বদ্ধপরিকর। এছাড়া ব্রিটিশ ও আয়ারল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনও শতবর্ষী আসর আয়োজনে আগ্রহী।