advertisement
আপনি পড়ছেন

মার্কিন হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি তাইওয়ানের পর আজ শুক্রবার জাপান সফরে রয়েছেন। এর আগে তিনি সংক্ষিপ্ত সফরে দক্ষিণ কোরিয়ায়ও যান। টোকিওতে পেলোসি জাপানি কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করবেন। তার তাইওয়ান সফরের প্রতিক্রিয়া হিসেবে বেইজিং নজিরবিহীন সামরিক মহড়া প্রদর্শন করেছে। মহড়ার সময় চীনের নিক্ষেপ করা ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের অর্থনৈতিক অঞ্চলে আঘাত হানে। এতে বেইজিং-টোকিও উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

pelosi taiwan address তাইওয়ানের পর জাপানে পেলোসি, ক্ষুব্ধ চীন

পেলোসি উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতি জোর সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার সঙ্গে শুক্রবার সকালে এক বৈঠকে মিলিত হন পেলোসি। পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের স্পিকার হিরোয়ুকি হোসোদার সঙ্গেও তিনি সাক্ষাৎ করবেন।

কিশিদা তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়ার সময় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের জন্য চীনের নিন্দা করেছেন। পেলোসির সঙ্গে ফুমিও কিশিদার আলাপ হয়েছে। সকালের নাস্তায় পেলোসির সঙ্গে কথা বলেন কিশিদা। তিনি বলেন, চীনের ক্ষেপণাস্ত্র জাপান সীমানার মধ্যে আঘাত হেনেছে। চীনের এই আচরণ এ অঞ্চলের জাতীয় নিরাপত্তা এবং নাগরিকদের নিরাপত্তাকে প্রভাবিত করতে পারে।

taiwan pelosi departure tlsd এশিয়া সফরে পেলোসি

এর আাগে তাইওয়ানে পেলোসির সফর ছিল সংক্ষিপ্ত। পেলোসি দ্বীপরাষ্ট্রটির কংগ্রেসের একটি প্রতিনিধি দলের সাথে অঘোষিতভাবে সংক্ষিপ্ত বৈঠক করেন এবং তাইওয়ান ত্যাগ করেন। ২৫ বছরের মধ্যে দ্বীপরাষ্ট্রটিতে কোনো সর্বোচ্চ পর্যায়ের মার্কিন কর্মকর্তা সফর করলেন।

ওয়াশিংটনের অন্যতম ঘনিষ্ঠ মিত্র টোকিও চীনের কর্মকাণ্ডে শঙ্কিত। কারণ জাপান মনে করে, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের শক্তি ক্রমবর্ধমান। তাছাড়া বেইজিং তাইওয়ানের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ নিতে পারে এমন আশঙ্কাও রয়েছে টোকিওর।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জন কিরবি সাংবাদিকদের বলেছেন, মার্কিন হাউস স্পিকারের সফরে অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে চীন। তাইওয়ান প্রণালীতে এবং এর আশেপাশে সামরিক তৎপরতা বাড়ানো উসকানিমূলক। তবে তাপমাত্রা বেশি হওয়ার কারণে চীন উত্তেজনা কমিয়ে দ্রুত সামরিক মহড়া বন্ধ করতে পারে।

খবরে বলা হচ্ছে, জাপানের দক্ষিণাঞ্চলের দ্বীপগুলো তাইওয়ানের কাছাকাছি। এজন্য তাইওয়ানকে চীনের ভয় দেখানোর ব্যাপারটি একটি ক্রমবর্ধমান জাতীয় নিরাপত্তা হুমকি। জাপানের প্রধানমন্ত্রী কিশিদা সামরিক ব্যয় দ্বিগুণ করে জিডিপির ২ শতাংশে উন্নীত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পর চীন-জাপান উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর