advertisement
আপনি পড়ছেন

কিছুদিন আগে হঠাৎ ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে বিদায় নেন বেন স্টোকস। এজন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ব্যস্ত সূচিকে দায়ী করেছেন তারকা সিমিং অলরাউন্ডার। স্টোকসের সাথে সহমত প্রকাশ করে পরবর্তীতে বেশ কয়েকজন বর্তমান এবং সাবেক ক্রিকেটার এই ফরম্যাটের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। একই আশঙ্কা প্রকাশ করে পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেটের যেনো কোনো ক্ষতি না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মঈন আলি।

moeen ali sadমঈন আলি

ওয়ানডে ক্রিকেট কোন দিকে যাচ্ছে সেটা আইসিসির সূচি দেখেই বোঝা যায়। বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার ফিউচার ট্যুর প্ল্যানের (এফটিপি) যে খসড়া প্রকাশ হয়েছে, সেখানে একদিনের ক্রিকেটকে কম গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। শোনা যাচ্ছে, সামনে বাদ দেওয়া হবে ওয়ানডে সুপার লিগও।

ওয়ানডে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ কমে যাওয়ার আরেকটা কারণ টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের দৌরাত্ম্য। অঢেল অর্থ আয়ের সুযোগ থাকায় বিভিন্ন দেশের কুড়ি ওভারের টুর্নামেন্টকে প্রাধান্য দেন ক্রিকেটাররা। এদিকে ক্রিকেটের সর্বপ্রথম সংস্করণ হওয়ায় টি-টোয়েন্টি ছাড়াও টেস্টকে বেশি মর্যাদাপূর্ণ মনে করেন বাইশ গজের যোদ্ধারা।

icc logo newআইসিসি

গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মঈন বলেন, ‘বর্তমানে অনেক খেলা হচ্ছে। টানা খেলার কারণে ওয়ানডে ফরম্যাটে অবসরের মাত্রা বেড়ে যাবে। আমার মনে হয়, এই ফরম্যাটে কোনো ভারসাম্য নেই এখন। এজন্য কিছু একটা করা উচিত। আমার ভয় হচ্ছে, না জানি কয়েক বছরের মধ্যে ওয়ানডে ক্রিকেট হারিয়ে যায়।’

‘একজন তরুণ ক্রিকেটার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেলেও অনেক অর্থ আয় করতে পারে। মোটা অঙ্কের অর্থ আয় করা যায় বলে এটা নিয়ে তাদের মধ্যে উদ্বেগ কাজ করে না। এজন্য তো আপনি টেস্ট ক্রিকেটের স্বাদ পাচ্ছেন না, যেটা নাকি সবার সেরা। ভালো ক্রিকেটাররা টেস্ট না খেলতে পেরেও হতাশ হচ্ছে না। অথচ আজ থেকে ১০ থেকে ১৫ বছর আগে টেস্ট ক্রিকেটেই কিন্তু সব ছিল।’

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর