advertisement
আপনি পড়ছেন

এবারের গ্রীষ্মকালীন দলবদলের মৌসুমে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ছেড়ে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দিয়েছেন আর্লিং হাল্যান্ড। সিটিজেনদের হয়ে প্রাক মৌসুমে কয়েকটা প্রস্তুতি ম্যাচও খেলেছেন নরওয়েজান স্ট্রাইকার। কিন্তু গোল পাননি তিনি। বরং কমিউনিটি শিল্ডে লিভারপুলের গোলমুখের সামনে হাস্যকর মিস করে বিশ্বজুড়ে ট্রলের শিকার হয়েছেন।

haaland opened his manchester city goal accountগার্দিওলা: হাল্যান্ড এখন রোনালদো-অঁরিদের কাতারে

খুব স্বাভাবিকভাবেই সিটি কোচ পেপ গার্দিওলার ওপর কিছুটা হলেও চাপ ছিল। কারণ হাল্যান্ডকে তিনিই নিয়ে এসেছেন ইতিহাদ চত্বরে! সমালোচনায় অবশ্য ভ্রুক্ষেপ ছিল না তার। স্প্যানিশ কোচ জানান, ছাত্রের গোল না পাওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন নন তিনি। অবশেষে সঠিক সময়ে উপযুক্ত মঞ্চে গুরুর আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন হালান্ড।

রোববারে রাতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে অভিষেক ম্যাচেই নরওয়েজান সেনসেশন করেছেন জোড়া গোল। তার দুই গোলের ওপর দাঁড়িয়ে ওয়েস্টহাম ইউনাইটেডের মাঠে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা জিতেছে ২-০ ব্যবধানে। এই জয়ে ইংলিশ লিগে শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু হলো গার্দিওলার দলের।

জয়ের নায়ক হাল্যান্ড। ১১ বছর পর সিটির কোনো ফুটবলার হিসেবে অভিষেক ম্যাচে জোড়া গোল করলেন তিনি। ২০১১ সালে এমন কীর্তি গড়েছিলেন সিটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা সার্জিও অ্যাগুয়েরো। আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের সেই দিনটার কথাই হাল্যান্ড মনে করিয়ে দিলেন। তার পারফরম্যান্সে স্বভাবতই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন গার্দিওলা।

ওয়েস্টহাম ম্যাচ শেষে সুযোগ বুঝে স্প্যানিশ কোচ হালান্ডকে দিয়ে দিলেন সম্ভাব্য সেরা প্রত্যয়নপত্র। নতুন শিষ্যকে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, অ্যালান শিয়েরার এবং থিয়েরি অঁরির মতো কিংবদন্তির কাতারে নিয়ে গেলেন গার্দিওলা। তিনি বলেছেন, ‘এক সপ্তাহ আগেও হাল্যান্ড প্রিমিয়ার লিগের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারেনি। এখন সে থিয়েরি অঁরি, অ্যালান শিয়েরার এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কাতারে আছে।’

অস্ট্রিয়ান ক্লাব রেড বুল সালবার্জ ও জার্মান জায়ান্ট বরুসিয়া ডর্টমুন্ডে গোলের বান ছুটিয়েছেন হাল্যান্ড। আক্রমণাত্মক ফুটবলের ধারক ও বাহক হয়ে ওঠা ম্যানচেস্টার সিটিতে তিনি আরও বিধ্বংসী হয়ে উঠবেন বলে প্রত্যাশা ছিল। কিন্তু নতুন ঠিকানায় শুরুতেই বাস্তবতা তার জন্য কঠিন হয়ে ওঠে। শুনতে হয়েছে সমালোচকদের তীর্যক মন্তব্য।

ইংলিশ লিগের শুরুতেই নিন্দুকদের দাঁতাভাঙা জবাব দিলেন হাল্যান্ড। ডাবলস নৈপুণ্যে সিটিতে খুললেন গোলের খাতা। তাতে মুগ্ধ সিটির প্রধান কোচ। গার্দিওলা বলেছেন, ‘আমি জানি এই সপ্তাহে (আসলে গত সপ্তাহে) কীভাবে সে প্রচুর সমালোচনা সামলেছে। সে খুব শান্ত ছিল এবং ভালোভাবে অনুশীলন করেছিল। কিন্তু যেভাবে ও পেনাল্টি আদায় করে নিয়েছে এবং দ্বিতীয় গোলটা করেছে তাতে আমি খুব খুশি। ওর মধ্যে অবিশ্বাস্য প্রতিভা আছে। ও দুর্দান্ত একজন খেলোয়াড়; অনেক গোল করতে পারে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর