advertisement
আপনি পড়ছেন

প্রথম দুই ওয়ানডেতে রানের পাহাড় গড়েও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। তাতে সিরিজ হাতছাড়া করেছে রাসেল ডোমিঙ্গোর শিষ্যরা। ধবলধোলাই এড়াতে শেষ ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই সফরকারীদের জন্য। এমন সমীকরণ সামনে রেখে জিম্বাবুয়েকে ২৫৭ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে টাইগাররা। ব্যাটিং উইকেটে এই লক্ষ্য তাড়া করতে তেমন বেগ পোহানোর কথা নয় স্বাগতিকদের।

afif and mirazদুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন আফিফ

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে দেখেশুনেই আগাচ্ছিলেন তামিম ইকবাল খান ও এনামুল হক বিজয়। বিপত্তি হয় ভুল বোঝাবুঝিতে, রান আউটে ফাঁদে পড়েন তামিম। তার আগে ৩০ বলে ১৯ রান করেন সফরকারী দলপতি। সে ধাক্কা সামাল দিতে পারেননি মুশফিকুর রহিম, নাজমুল হোসেন শান্তরা।

উল্টো দলকে আরও বিপদে ফেলে যান এই দুজন। এদের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি। প্রথম বলেই বিদায় নিয়েছেন শান্ত। তিন বল খেলেছেন মুশফিক। চতুর্থ উইকেটে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন বিজয়। ৭৭ রান যোগ করেন দুজন। সেঞ্চুরির আশা জাগিয়ে ফিরে যান বিজয়। ব্যক্তিগত ৭৬ রানে লুক জংয়ের শিকার হন এই ওপেনার।

বিজয়ের বিদায়ের পর আফিফ হোসেন ধ্রুবকে নিয়ে হাল ধরার চেষ্টা করেন রিয়াদ। আফিফের সাথে পঞ্চম উইকটে ৪৯ রান করার পর ফেরেন ধীরগতির ব্যাট করা রিয়াদ। ৬৯ বল মোকাবেলা করা ময়মনসিংহের এই ক্রিকেটারের উইলো থেকে আসে ৩৯ রান। বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি মেহেদি হাসান মিরাজ। ব্যক্তিগত ১৪ রানে সিকান্দার রাজার শিকারে পরিণত হন স্পিনিং অলরাউন্ডার। 

শেষ পর্যন্ত লড়াই করে গেছেন আফিফ। ৮১ বলে ৮৫ রানে অপরাজিত ছিলেন খুলনার এই ক্রিকেটার। ছয় চারের পাশাপাশি দুই চার হাঁকান আফিফ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৫৬ রান করে বাংলাদেশ। জংয়ে ও ব্রাড ইভান্স নেন দুটি করে উইকেট।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর