আপনি পড়ছেন

যদি ব্যালন ডি’অর জিততে চাও, রিয়াল মাদ্রিদে যাও।’ কথাটা বেশ পুরোনো। কারণ ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচনের ইতিহাসে এই ক্লাবটির খেলোয়াড়দের জয়জয়কার। স্বপ্নের ক্লাবে আসার ইচ্ছে ছিল কিলিয়ান এমবাপ্পেরও। কিন্তু চাপের মুখে পিএসজি ছাড়তে পারেননি ফরাসি ফরওয়ার্ড।

benzama mbappe psgফ্রান্সের সাফল্য উদযাপনে কিলিয়ান এমবাপ্পে ও করিম বেনজেমা

এমবাপ্পেকে ভবিষ্যতের ফুটবল মহাতারকা হিসেবে দেখে থাকেন অনেকেই। কিন্তু পিএসজিতে থেকে নিজেকে পুরোপুরি প্রতিষ্ঠিত করতে পারবেন না ফরাসি তারকা। এমনটাই ভাবনা অনেক রথী-মহারথীর। এ কারণে নানা সময়ে অনেকেই এমবাপ্পেকে রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

ব্যালন ডি’অর জয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ বড় একটা প্রভাবক হিসেবে কাজ করে। এই যেমন গত মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদ জিতেছে এই প্রতিযোগিতার ট্রফি। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স এবং ক্লাবের সাফল্যের কারণে দলটির স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা এবার ট্রফি জয়ের দৌড়ে অনেক দূর এগিয়ে গেছেন।

ballon dorব্যালন ডি’অর ট্রফি

শুক্রবার রাতে ঘোষিত ব্যালন ডি’অরের প্রাথমিক তালিকাতে আছেন এমবাপ্পেও। কিন্তু তার পক্ষে যে বর্ষসেরা মুকুট জেতা আপাতত সম্ভব নয়, সেটা মানছেন পিএসজি সুপারস্টার। বিশ্বকাপজয়ী তরুণ তুর্কি দাবি করলেন সেরা তিনে থাকবেন তিনি। তার মতে বেনজেমার হাতেই উঠবে বর্ষসেরার মুকুট।

বেনজেমা না জিতলে ব্যালন ডি’অরের ওপর বিশ্বাস উঠে যাবে এমবাপ্পের। শনিবার রাতে তিনি যেমনটি বলেছেন, ‘সেরা তিনে? আমি বলব বেনজেমা আমি এবং সাদিও মানে। ৩৪ বছর বয়সে এসে সে আরেকটি চ্যাম্পিয়নস লিগের ভাগ্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন। যদি সে এটা না জেতে তাহলে আমি চিরতরে ব্যালন ডি’অরের ওপর বিশ্বাস উঠে যাবে আমার।

এমবাপ্পে যোগ করেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদ ব্যালন ডি’অরের মেশিন। আপনাকে এটা মানতেই হবে। তবে আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে মাটিতে পা রাখা। আমি বিশ্বাস করি একদিন আমি পিএসজিতে খেলে ব্যালন ডি’অর জিততে পারব। এটা বিশ্বাসঘাতকতা হবে যখন কেউ বলবে আমি ব্যালন ডি’অরের তোয়াক্কা করি না।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর