advertisement
আপনি পড়ছেন

এবারের গ্রীষ্মকালীন দলবদলের মৌসুমে সবচেয়ে সরব ছিল বার্সেলোনা। কাড়ি কাড়ি অর্থ খরচ করে ঢেলে দল সাজিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। কিন্তু নতুন ও পুরোনো খেলোয়াড়দের সমন্বয়ে যে আরো সময় লাগবে সেটা নতুন মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই টের পেল ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

lewandowski raphinha christensen and kessieনতুন পাঁচ ফুটবলারের তিনজনেরই শুরুর একাদশে অভিষেক করিয়েছেন বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ

শনিবার স্প্যানিশ লা লিগায় নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেয়েছে বার্সেলোনা। তাও আবার ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে। বার্সার মাঠে এসে তাদেরই গোলশূন্য ব্যবধানে রুখে দিয়েছে রায়ো ভায়োকানো। ম্যাচটা আবার বার্সা শেষ করেছে ১০ জনের দল নিয়ে। হারানো শিরোপা উদ্ধারে কাতালানদের অভিযানের শুরুটা এরচেয়ে বাজে হতে পারত না।

নতুন পাঁচ ফুটবলারের তিনজনেরই শুরুর একাদশে অভিষেক করিয়েছেন বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ। বার্সার প্রথম ম্যাচেই একাদশে ছিলেন রবার্ট লেভানডফস্কি, রাফিনহা, আন্দ্রেস ক্রিশ্চেনসেন ও ফ্র্যাঙ্ক কিসি। কিন্তু তাদের অভিষেক আনন্দ মাটি হয়ে গেছে বার্সা হোঁচট খাওয়ায়। ম্যাচজুড়ে হতাশ করা স্বাগতিকদের শেষটা হয়েছে আরো বিবর্ণ।

ম্যাচের শেষ মুহূর্তে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন বার্সা অধিনায়ক সার্জিও বুসকেটস। লাল কার্ড দেখায় লিগের পরের ম্যাচে নিষিদ্ধ হচ্ছেন তিনি। বুসকটেসের মাঠ থেকে বহিষ্কার হওয়াটা বার্সার ড্রয়ের হতাশা বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণ। অনেক সুযোগ হাতছাড়া করার মাসুল হিসেবেই পয়েন্ট হারাতে হলো তাদের।’

অবশ্য ম্যাচজুড়ে আক্রমণ করেছে বার্সেলোনা। বলের দখল, আক্রমণ, পাসিং, প্লেসিং কোথায় এগিয়ে ছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু ফিনিশিং দুর্বলতার কারণে দর্শকদের উল্লাসের উপলক্ষ্য এনে দিতে পারেননি জাভির শিষ্যরা। প্রাক মৌসুম প্রস্তুতি পর্বে নিজেকে হারিয়ে খোঁজা লেভানডফস্কি কাল থাকলেন নিষ্প্রভ।

তবে ঘরের মাঠে তার শুরুটা ছিল আশা জাগানিয়া। ম্যাচের ১২ মিনিটে ভায়োকানোর জালে বল জড়ান বায়ার্ন মিউনিখের সাবেক স্ট্রাইকার। কিন্তু লেভা নিজেই ছিলেন অফসাইডে ; বাতিল হয়ে যায় গোল। ম্যাচের বয়স এক ঘণ্টা হলে তিনটি পরিবর্তন আনেন বার্সা কোচ জাভি। তাতেও কাজ হয়নি।

নির্ধারিত সময়ের শেষ দিকে আরো একবার কেঁপে ওঠে ভায়োকানোর বল। এবারও সেই অফসাইডের ফাঁদে পড়ে বার্সা। আনসু ফাতির শট অতিথি গোলরক্ষক দিমিত্রিয়েভস্কি ফিরিয়ে দিলে ফিরতি শটে গোল করেন কিসি। কিন্তু দুর্ভাগ্য পিছু ছাড়ল না। ভাগ্য পাশে ছিল না সফরকারী ভায়োকানোরও।

দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমে বার্সার জালে বল জড়ান বদলি স্ট্রাইকার রাদামেল ফ্যালকাও। কিন্তু তিনিও গোল পেলেন না অফসাইডের কারণে। হারের মুখ থেকে বেঁচে যায় বার্সা। তবে পয়েন্ট পেলেও এই ড্র বার্সার কাছে হারের সমতুল্য। কারণ ‘বিগ বাজেটে’র দল নিয়ে ঘরের মাঠে পয়েন্ট হারানোটা দলের জন্য বড় ধাক্কাই বটে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর