আপনি পড়ছেন

শ্রাবণের পূর্ণিমায় রাখি বন্ধন উৎসবে মেতে ওঠেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। ভালবাসার প্রতীক হিসেবে ভাইয়ের হাতে রাখী বেঁধে দেন বোন। তবে এবার বাঘের পায়ে রাখী বেঁধে পশুর প্রতিই অপত্য ভালোবাসা দেখালেন ভারতের রাজস্থানের এক নারী।

woman ties rakhi to injured leopardবাঘের পায়ে রাখী বাঁধলেন নারী

রাজস্থানের কোনো একটি গ্রামে একটি চিতাবাঘের পায়ে রাখী বাঁধার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

টুইটারে দেওয়া ছবিতে দেখা যায়, গোলাপী শাড়ি পরা এক নারী, মাথায় দিয়ে ঘোমটা, চিতার পায়ে বাঁধছেন রাখী।

এবার তিথি অনুযায়ী, ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে ১২ আগস্ট শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ছিল রাখী পরানোর শুভ মুহূর্ত। সেই শুভমুহূর্তে চিতাবাঘের পায়ে রাখী বেঁধে বনের পশুর প্রতি ভালোবাসার অনন্য নজির দেখালেন রাজস্থানের ওই নারী।

রাজস্থানের বনবিভাগ জানিয়েছে, কোনোভাবে আহত চিতাবাঘটি গ্রামে ঢুকে পড়ে। বাঘটিকে হয়রানি বা পিটিয়ে মেরে না ফেলে গ্রামবাসী পশুটির প্রতি সমব্যথী হয়ে ওঠে। চিতাটিকে বন বিভাগের হাতে তুলে দেয় গ্রামবাসী। তার আগে রাখী বন্ধনের তিথিতে বাঘটির পায়ে রাখী পরিয়ে দেন ওই নারী।

রাজস্থানে ভারতীয় বনকর্মকর্তা সুশান্ত নন্দা চিতার পায়ে রাখী পরানোর ছবি দিয়ে টুইটে লিখেছেন, ‘ভারতে যুগ যুগ ধরে মানুষ ও বন্য পশুরা নিঃশর্ত ভালবাসার বন্ধনে আবদ্ধ থেকে মিলেমিশে বসবাস করে আসছে। রাজস্থানের একটি গ্রামে দেখা গেল সেই ছবিই। এক ভদ্রমহিলা চিরন্তন ভালোবাসার নজির রেখেই আহত চিতাবাঘকে রাখী (ভালোবাসা ও ভ্রাতৃপ্রেমের প্রতীক) পরালেন। তার পর চিতাটিকে তুলে দিলেন বন বিভাগের হাতে।’

ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাড়া ফেলে দিয়েছে চিতাকে রাখী পরানোর ছবিটি। প্রশংসায় ভাসছেন ওই নারী। একজন টুইটার ব্যবহারকারী বলেছেন, ‘এমনই হওয়া উচিত। বন ও বন্য পশুর সঙ্গে আমাদের সহাবস্থান ঘটাতে হবে। ঈশ্বর জগত সৃষ্টি করেছেন কেবল মানুষের জন্য নয়।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘রাখী বাঁধা প্রতীকী... স্নেহ ও ভালোবাসা অনেক সুন্দর... ভদ্রমহিলা সেটি দেখিয়েছেন...এবং বনের যত্ন নেওয়া কর্মীদের জানাই সাধুবাদ।’

সূত্র: এনডিটিভি

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর