advertisement
আপনি পড়ছেন

হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে জনপ্রিয় রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান উবার। তবে এ ঘটনায় গ্রাহকের স্পর্শকাতর ডেটায় অনুপ্রবেশ করতে পারেনি হ্যাকার, দাবি উবারের। গত বৃহস্পতিবার ১৮ বছরের এক কিশোর মার্কিন এ প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করে। অ্যামাজন ওয়েব সার্ভিসেস এবং গুগল ক্লাউডসহ উবারের বেশকিছু বাণিজ্যিক টুলে প্রবেশ করতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবি ওই কিশোর হ্যাকারের। হ্যাকার নিজেই উবারের স্ল্যাক সিস্টেমে এ বিষয়ে পোস্ট করেছেন।

uber business affected by corona virusরাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান উবার

উবারের অভ্যন্তরীণ গোপন নথিপত্রের স্ক্রিনশট শেয়ার করে ওই হ্যাকার বলেন, আমি একজন হ্যাকার এবং ডেটা ফাঁসের শিকার হয়েছে উবার।

উবার দাবি করছে, হ্যাকিংয়ের ঘটনায় গ্রাহকদের স্পর্শকাতর ডেটায় হ্যাকার অনুপ্রবেশ করতে পেরেছে এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

উবার, উবার ইটস, উবার ফ্রেইট এবং উবার ড্রাউভ সেবাগুলো শুক্রবারেই চালু হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট। কোম্পানিটি এখন অভ্যন্তরীণ সফটওয়্যার টুলগুলো একে একে পুনরায় চালু করছে বলে জানিয়েছে সাইটটি।

হ্যাকিংয়ের খবর আগেই টুইট করে নিশ্চিত করে উবার বলেছিল, সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক ঘটনার তদন্ত করছি। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছি।

জানা গেছে, কোনো খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে উবারের কম্পিউটার সিস্টেমে প্রবেশ করেনি ওই হ্যাকার। মজা করতে গিয়েই এমনটা করেছেন তিনি।

উবারের প্রাক্তন প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা জোসেফ সুলিভান ২০১৬ সালে একটি বড়সড় সাইবার হামলা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। হ্যাকারদের ১০ লাখ মার্কিন ডলার দিতে চেয়েছিলেন তিনি। যার বিচার এখনও চলমান রয়েছে। সে ঘটনায় প্রায় ৫৭ মিলিয়ন গ্রাহক এবং ড্রাইভারের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি হয়েছিল।

এবারের ঘটনা তদন্তে এফবিআইও মাঠে নেমেছে বলে খবর এসেছে।