advertisement
আপনি পড়ছেন

মুসলমানদের প্রথম কেবলা আল-আকসা মসজিদের পরিচালক শেখ ওমর আল-কিসওয়ানিকে সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) আটক করেছে ইসরায়েলি পুলিশ। এ সময় তার বাড়ি থেকে বেশ কিছু জিনিসপত্র জব্দ করা হয়। ফিলিস্তিনের আল ইয়াউম নামের একটি টিভি চ্যানেল এ খবর জানিয়েছে।

omar al kiswaniশেখ ওমর আল-কিসওয়ানি

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনী পূর্ব জেরুজালেমের আল-তুর পাড়ায় আল-কিসওয়ানির বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। তাকে গ্রেপ্তারের কোনো কারণ জানানো হয়নি। অভিযান চালানোর সময় নিরাপত্তা বাহিনীর লোকজন কিসওয়ানির একটি কম্পিউটার এবং বেশ কিছু নথি বাজেয়াপ্ত করে। পরে তারা কিসওয়ানিকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।

শেখ ওমর আল-কিসওয়ানি এর আগেও বেশ কয়েকবার ইসরায়েলি পুলিশের হাতে আটক হয়েছিলেন। তিনি সবসময় ইসরায়েলি ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছেন। কিছুদিন আগেও তিনি পুরো বিশ্বের মুসলমানকে আল-আকসা মসজিদ ঘিরে ইসরায়েলি ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সতর্ক করে বলেছিলেন, আল-আকসা মসজিদের আশপাশে খনন কাজ চালাচ্ছে ইসরায়েল। এমনকি মসজিদের নিচেও খনন কাজ চালানো হচ্ছে। এর ফলে হুমকির মুখে পড়ছে মসজিদটির অস্তিত্ব।

ইসরায়েল যেসব খনন কাজ চালাচ্ছে তা ইউনেস্কো ও জাতিসংঘের নীতিবিরোধী উল্লেখ করে কিসওয়ানি দাবি করেছিলেন, ইসরায়েলিদের এখনই এসব ধ্বংসাত্মক খনন কাজ বন্ধ করতে হবে। এ খনন কাজ বন্ধে ইসরায়েলকে বাধ্য করতে এগিয়ে আসতে হবে মুসলিম বিশ্বকেই। কারণ মসজিদুল আকসার ক্ষতি হয়ে গেলে নিশ্চিতভাবেই ক্রুসেডের সূচনা হবে। সে যুদ্ধ শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে ঠেকবে তা কেউ বলতে পারে না।

উল্লেখ্য, আল-আকসা মসজিদ মুসলিমদের জন্য বিশ্বের তৃতীয় পবিত্র স্থান। ইহুদিরা স্থানটিকে টেম্পল মাউন্ট নামে চেনে। তাদের দাবি, এখনে প্রাচীনকালে দুটি ইহুদি মন্দিরের অস্তিত্ব ছিল।