advertisement
আপনি পড়ছেন

আখেরি চাহার সোম্বা আজ বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর)। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর এদিন বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) সাময়িক সুস্থতা লাভ করেছিলেন। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মুসলমানরা অত্যন্ত ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে দিনটিকে স্মরণ করে এবং সবাই মিলে ইবাদত-বন্দেগী ও দোয়ায় মিলিত হয়।

duaফাইল ছবি

‘আখেরি চাহার সোম্বা’ ফারসি পরিভাষা। আখের মানে শেষ, চাহার মানে সফর মাস এবং সোম্বা অর্থ বুধবার। সবমিলিয়ে অর্থ দাঁড়ায়- সফর মাসের শেষ বুধবার। ইন্তেকালের অসুস্থতা শুরু হওয়ার পর এদিন সাময়িক সুস্থতা লাভ করেন মহানবী (সা.)। কিছু সময় পর আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং এর কয়েকদিন পর তিনি ইন্তেকাল করেন।

মহানবীর (সা.) অসুখটা ছিল ভীষণ যন্ত্রণার। প্রচণ্ড মাথাব্যথা তারওপর ভীষণ জ্বর নিয়ে যন্ত্রণায় ছটফট করতেন। তিনি বারবার বলছিলেন, এ আমার শেষ যাত্রার অসুখ। আল্লাহ তার নবীদের সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন, তাই তাদেরকে তিনি সবচেয়ে বেশি কষ্ট দিয়ে দুনিয়া থেকে বিদায় করেন। তবে অন্যসব নবী যত কষ্ট পেয়েছেন আমি তারচেয়ে অনেক বেশি কষ্ট পাচ্ছি।

বিশ্বনবীর (সা.) কষ্ট সবাইকেই কষ্ট দিচ্ছিল। সবাই ধরে নিয়েছিলেন, এবার আর তিনি সুস্থ হবেন না। কিন্তু সফর মাসের শেষ বুধবার হঠাৎ তিনি সুস্থ হয়ে উঠলেন। ভালো করে গোসল করলেন। কলিজার টুকরো ফাতেমা এবং দুই নাতিকে সঙ্গে করে ভালো খাবার খেলেন। জামাতের সঙ্গে জোহরের নামাজ আদায় করলেন।

এসব দেখে সাহাবিরা যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেলেন। খুশিতে উল্লাস করতে লাগলেন। আনন্দে আত্মহারা হয়ে আল্লাহর রাস্তায় স্বর্ণ, রূপা, নগদ অর্থ, উট-ভেড়া বিলিয়ে দিতে লাগলেন। যুগের পর যুগ ধরে মুসলমানদের মধ্যে সেই আনন্দ ছড়িয়ে পড়েছে। আখেরি চাহার সোম্বা নামে বর্তমানে সেটাই উদযাপন করে মুসলমানরা।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর