advertisement
আপনি পড়ছেন

কাশ্মির সমস্যার স্থায়ী ও দ্রুত সমাধানের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। গতকাল মঙ্গলবার রাতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি কাশ্মির সমস্যাকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার অন্তরায় হিসেবে অভিহিত করেছেন।

erdogan unga
কাশ্মির সমস্যার ন্যায্য ও স্থায়ী সমাধানের কথা বললেন এরদোয়ান

এরদোয়ান বলেন, ভারত ও পাকিস্তান ৭৫ বছর আগে নিজেদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে। কিন্তু এখনও দুই দেশ নিজেদের মধ্যে শান্তি ও সংহতি প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা এই প্রত্যাশা ও কামনা করি যে, কাশ্মিরে স্থায়ী শান্তি ও সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠিত হবে।

বিশ্বনেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে তিনি আরও বলেন, কাশ্মিরে ন্যায্য ও স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। যত দ্রুত তা সম্ভব, সে চেষ্টা চালাতে হবে।

jammu kasmirকাশ্মিরে ভারতীয় সেনাদের টহল

উজবেকিস্তানের সমরখন্দে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের কয়েকদিনের মাথায় এরদোয়ান জাতিসংঘে কাশ্মির ইস্যু উত্থাপন করলেন। এর আগেও তিনি একাধিক বক্তৃতায় কাশ্মির সমস্যা সমাধানের তাগিদ দিয়েছেন।

২০২০ সালে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে দেওয়া বক্তৃতায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট কাশ্মিরি জনগণের লড়াইকে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় বিদেশী আধিপত্যের বিরুদ্ধে তুরস্কের মানুষের সংগ্রামের সঙ্গে তুলনা করেন।

সেবার এরদোয়ানের বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে ভারত সরকার তুর্কি রাষ্ট্রপ্রধানকে ‘ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে’ হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান জানিয়েছিল। কাশ্মিরকে ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ দাবি করে নয়াদিল্লীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেছিলেন, জম্মু ও কাশ্মীর বিষয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের সব বক্তব্য ভারত প্রত্যাখ্যাান করছে।