আপনি পড়ছেন

টি-টোয়েন্টিতে লম্বা সময় ধরে ব্যর্থতার গ্লানি টানছেন বাংলাদেশের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষেও নিজেদের ব্যর্থতার ধারা বজায় ছিল। আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে বিষয়টা ভাবাচ্ছে সংশ্লিষ্টদের। তবে এটাকে বড় ধরনের সমস্যা হিসেবে বিবেচনা করছেন না আফিফ হোসেন ধ্রুব।

afif hossain 5ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলেছেন আফিফ

ছোট ফরম্যাটের বিশ্বমঞ্চের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আরব আমিরাতের সাথে দুই ম্যাচের সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে গতকাল দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের ৭ রানে হারিয়েছে নুরুল হাসান সোহানের দল। র‌্যাঙ্কিংয়ের ১৪ নম্বর দলটির বিপক্ষে এমন কষ্টেসৃষ্টে পাওয়া জয়ের পর আরও একবার টাইগারদের এই ফরম্যাটের সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

দলকে প্রশ্নের বানে ফেলে দিয়েছেন টপ অর্ডাররা। টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৭৭ রানেই পাঁচ ব্যাটসম্যান হারায় সফরকারীরা। চরম বিপর্যয়ে দলের কান্ডারি বনে যান আফিফ ও সোহান। ষষ্ঠ উইকেটে নিরবচ্ছিন্ন থেকে এই দুইজন যোগ করেন মাহমূল্যবান ৮১ রান। ৩৫ রান আসে অধিনায়কের ব্যাট থেকে। অন্যদিকে ক্যারিয়ার সেরা ৭৭ রানের ইনিংস খেলেন আফিফ। ৫৫ বল থেকে ৭ চারের পাশাপাশি ৩ ছয় মারেন এই তরুণ প্রতিভাবান ক্রিকেটার।

জবাব দিতে নেমে আশা জাগিয়েও শেষ ওভারে গিয়ে জয় হাতছাড়া করে আরব আমিরাত। ২ বল বাকি থাকতেই ১৫১ রানে অলআউট হয় স্বাগতিক শিবির। অবশ্য অপেক্ষাকৃত দুর্বল শক্তির দলের বিপক্ষে পাওয়া এমন জয়ে সন্তুষ্ট হতে পারছেন না টাইগার ভক্তরা।

তবে ম্যাচ শেষে শাক দিয়ে মাছ ঢাকার বৃথা চেষ্টা করেছেন বাংলাদেশের সেরা পারফর্মার আফিফ, ‘শুরুতে উইকেটটা একটু কঠিন ছিল। বল গ্রিপ করছিল। টপ অর্ডাররা ভালো করতে পারেনি। আশা করি পরের ম্যাচে ভালো হবে ইনশাআল্লাহ। এটা কোনো সমস্যা নয়। আমি আর সোহান ভাই ব্যাটিং করার সময় উইকেট ভালো হচ্ছিল। এটা দেখে আমি আরও ভালো ব্যাটিং করতে পেরেছি।’

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর