আপনি পড়ছেন

এতদিনেও করোনার টিকা না নেওয়াদের জন্য সুবর্ণ সুযোগই বলা যেতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) শুরু হয়েছে বিশেষ টিকাদান ক্যাম্পেইন। এই ক্যাম্পেইনের আওতায় আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হবে। এরপর আর প্রথম ডোজ করোনার টিকা মিলবে না।

coronaকরোনা টিকার প্রথম ডোজের শেষ সুযোগ

দেশজুড়ে করোনার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম। বুধবার এ উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে ডা. খুরশিদ আলম বলেন, বিশেষ এই কর্মসূচি তাদের জন্য যারা এখনো করোনা টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নেননি। এই সুযোগে টিকা না নিলে তারা আর করোনা টিকা পাবেন না।

তাই যারা এখনো টিকার বাইরে রয়েছেন, তাদের চলমান কর্মসূচির আওতায় এই সপ্তাহের মধ্যে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ডা. খুরশিদ বলেন, এরপর থেকে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ করোনা টিকা দেওয়া হবে না। তবে বুস্টার ডোজ চলতে থাকবে। এছাড়া শিশুদের টিকাদান চলমান থাকবে। আগামী ১১ অক্টোবর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের টিকাদান শুরু হবে।

ডা. খুরশিদ বলেন, দেশে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে আগেই। দেশের মোট জনগোষ্ঠীর ৯৭ শতাংশ টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন। এছাড়া দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ৯০ শতাংশ এবং ৪১ শতাংশ মানুষ তৃতীয় বা বুস্টার ডোজ নিয়েছেন।

প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা আর না দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, টিকার স্বল্পতা রয়েছে, সঙ্গে কিছু টিকার মেয়াদও শেষ হয়ে যাচ্ছে।

টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে কিনা- এ বিষয়ে ডা. খুরশিদ আলম বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনওেএ নিয়ে নির্দেশনা দেয়নি। যেসব দেশ চতুর্থ টিকা দিচ্ছে, তারা নিজেদের প্রটোকল মেনে দিচ্ছে। আমাদের এখনো কোনো পরিকল্পনা নেওয়া হয়নি।

দেশে সম্প্রতি করোনার ঊর্ধ্বগতি দেখা দিয়েছে জানিয়ে ডা. খুরশীদ বলেন, সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর