আপনি পড়ছেন

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ব্যাপক সমালোচনা উপেক্ষা করে শুক্রবার ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্তির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। চারটি অঞ্চল হলো- ইউক্রেনের খেরসন, জাপোরিঝঝিয়া, দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক। এ সময় পুতিন বলেন, যে চার অঞ্চলকে রাশিয়ায় যুক্ত করা হচ্ছে, অঞ্চলগুলোর শাসকরাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

vladimir putin russia 2022পুতিন

পুতিন আরও বলেন, সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষজন রাশিয়ার সঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত পছন্দ করেছে। রাশিয়ান ফেডারেল অ্যাসেম্বলি এই চারটি অঞ্চলকে সমর্থন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এটি লাখ লাখ মানুষের ইচ্ছার প্রতিফলন। এ সময় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীরা তুমুল করতালী দিয়ে পুতিনকে সমর্থন জানায়। খবর রয়টার্স।

অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে রাশিয়াজুড়ে নেওয়া হয় কঠোর নিরাপত্তা। মস্কোর কেন্দ্রস্থল বিখ্যাত রেড স্কয়ারে সেনা মোতায়েন করা হয়। পুতিনের স্বাক্ষরের মাধ্যমে ইউক্রেনের খেরসন, জাপোরিঝঝিয়া, দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চল আনুষ্ঠানিকভাবে রুশ ফেডারেশনের সঙ্গে যুক্ত হয়। এমন সময়ে এই চারটি অঞ্চল রাশিয়ার সাথে অন্তর্ভুক্ত হলো, যখন এসব এলাকা উদ্ধারে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউক্রেন।

একইসঙ্গে পশ্চিমা বিশ্ব এই পদক্ষেপের সমালোচনা করে রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে। পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, গণভোটের পর এই চার অঞ্চলের শাসকদের আহ্বানে সাড়া দিতে অঞ্চলগুলোকে রুশ ফেডারেশনের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে।

এই চার অঞ্চল নিজেদের অংশ ঘোষণার লক্ষ্যে মস্কোর ক্রেমলিন হলে শুক্রবার বিকাল ৩টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে পুতিন বক্তৃতা করেন এবং নথিপত্রে স্বাক্ষর করেন। এ ছাড়া ক্রেমলিন ওয়াল থেকে একটু দূরে রেড স্কয়ারে একটি কনসার্টেরও আয়োজন করা হয়। ২০১৪ সালে ক্রিমিয়ার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর ঠিক একই রকম একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।

ইউক্রেনের চার অঞ্চল রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্তি উপলক্ষ্যে মস্কো শহরে ছিল উৎসবের আমেজ। পাশাপাশি ইউক্রেনের কিয়েভে ছিল চাপা উত্তেজনা। রাশিয়ার এই দখলের পর কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে, তা নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

এর আগে বৃহস্পতিবার জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়ার তথাকথিত গণভোটের কোনো মূল্য নেই। এতে বাস্তবতার কোনো পরিবর্তন হবে না। ইউক্রেনের আঞ্চলিক অখণ্ডতা ফিরিয়ে আনা হবে। রুশ পদক্ষেপের কঠোর জবাব দেওয়া হবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে, তারা রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধজ্ঞা আরোপ করবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর