আপনি পড়ছেন

ইন্দোনেশিয়ায় একটি ফুটবল ম্যাচকে ঘিরে সৃষ্ট সহিংসতায় পদদলিত হয়ে কমপক্ষে ১২৭ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ১৮০ জন। শনিবার (১ অক্টোবর) রাতে পূর্ব জাভার মালাং রিজেন্সির কাঞ্জুরুহান স্টেডিয়ামে ইন্দোনেশিয়ার শীর্ষ লিগ বি আরআই লিগা ১ এর একটি ফুটবল ম্যাচ চলাকালে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। খবর রয়টার্স ও হিন্দুস্তান টাইমস।

violence of football match in indonesiaমাঠে চলে আসে দর্শকরা

পূর্ব জাভা প্রদেশের ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ প্রধান নিকো আফিন্তা সাংবাদিকদের জানান, মালাংয়ের স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল আরেমা এফসি ও পার্সেবায়া সুরাবায়া। স্টেডিয়ামটি আরেমা এফসির ঘরের মাঠ বলে পরিচিত। খেলায় আরেমা ৩-২ গোলে সফরকারী পার্সেবায়ার কাছে হেরে যায়। বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি আরেমার সমর্থকরা। তারা মাঠে নেমে আসলে কর্তৃপক্ষ তাদের ঠেকাতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে। এতে দর্শকদের মধ্যে হুড়োহুড়ি সৃষ্টি হয়। তারা তাড়াহুড়ো করে স্টেডিয়াম থেকে বের হতে চাইলে পদদলিত হওয়ার এ ঘটনা ঘটে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মালাংয়ের স্টেডিয়ামের মাঠে লোকজন ভিড় করছে এবং কোথাও কোথাও তারা মারামারিতে লিপ্ত হয়েছে।

riot at football match in indonesiaদর্শকদের ঠেকাতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়া হয়

ইন্দোনেশিয়ার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (পিএসএসআই) শনিবার গভীর রাতে এই ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে একটি বিবৃতি জারি করে জানিয়েছে, ঘটনার তদন্তে একটি দল মালাংয়ের উদ্দেশে রওনা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, পিএসএসআই মালাং কাঞ্জুরুহান স্টেডিয়ামে আরেমা সমর্থকদের ক্রিয়াকলাপের জন্য আমরা অনুতপ্ত। নিহতদের পরিবারসহ সব পক্ষের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করছি।

এই দাঙ্গার পরে বি আরআই লিগা ১ এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। পাশাপাশি আরেমা এফসি দলকে এই মৌসুমের বাকি ম্যাচগুলোতে হোস্ট করা থেকেও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এদিকে বি আরআই লিগা ১-এর সভাপতি আখমাদ হাদিয়ান লুকিতা বলেছেন, পিএসএসআইর চেয়ারম্যানের কাছ থেকে একটি নির্দেশনা পাওয়ার পর আমরা সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছি। আমরা পিএসএসআইর সব সিদ্ধান্তকে সম্মান করি এবং ঘটনার তদন্তের জন্য অপেক্ষা করছি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর