আপনি পড়ছেন

ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় পরমাণু নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা এনেরহোটম বলেছে, রুশ সেনারা ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পরিচালক ইহোর মুরাশভকে আটক করেছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেল চারটার দিকে নিকটবর্তী শহর এনেরহোদারে যাওয়ার সময় তাকে আটক করা হয়। খবর বিবিসি।

ihor murashovইহোর মুরাশভ

এনেরহোটমের প্রেসিডেন্ট জানান, ইহোর মুরাশভকে আটকের পর তার চোখ বেঁধে ফেলা হয়। তাকে এনেরহোদারের একটি কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে হামলা শুরুর পরের মাসেই মস্কো ইউরোপের বৃহত্তম পারমাণবিক কেন্দ্র ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দখল করে এবং ইউক্রেনীয় কর্মীদের আটকে রাখে।

zaporizhzhia nuclear plant 3জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র

গত দুই মাসে এই পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র ব্যাপক হামলার শিকার হয়। ইউক্রেন ও রাশিয়া উভয়েই একে অপরকে এ হামলার জন্য দায়ী করেছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় উভয় পক্ষকে এ ধরনের হামলা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানায়।

শনিবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এনেরহোটমের প্রেসিডেন্ট পেট্রো কনটিন বলেন, পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির পরমাণু এবং বিকিরণ সুরক্ষার প্রধান ও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে ইহোর মুরাশভের কাঁধে। তার আটকের বিষয়টি ইউক্রেন ও ইউরোপের বৃহত্তম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কার্যক্রমের নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলেছে।

পেট্রো কনটিন বলেন, জাপোরিঝিয়াসহ ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে সংযুক্ত করার ঘোষণা দেওয়ার ধারাবাহিকতায় এ কাণ্ড ঘটিয়েছে মস্কো। কারণ, রাশিয়ার পারমাণবিক রাষ্ট্রীয় কোম্পানি রোসাটমের প্রতিনিধিরা দুই দিন আগে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেছেন। তারা জানিয়েছে, এই অঞ্চলের সংযুক্তির সাথে সামঞ্জস্য রেখে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণ থেকে রোসাটমের নিয়ন্ত্রণে স্থানান্তর করা হবে।

কনটিনের ধারণা, ইউক্রেন থেকে রাশিয়ায় পাওয়ার প্ল্যান্টের স্থানান্তরের বিষয়টি মেনে নিতে রাজি করানোর জন্যই মুশারভকে আটক করা হয়েছে।

মস্কো পরমাণু কেন্দ্রটির নিয়ন্ত্রণ ইউক্রেনের কাছ থেকে রোসাটমে সরানোর চেষ্টা করেছে। কিন্তু রাশিয়ার এ প্রচেষ্টাকে মুশারভ গ্রহণযোগ্য বলে মনে করেননি।

এনেরহোটমের প্রেসিডেন্ট ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দখলের বিষয়টিকে রাশিয়ার পারমাণবিক সন্ত্রাস আখ্যা দিয়ে প্লান্টের প্রধান ইহোর মুরাশভকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) কাছে আবেদন জানিয়েছেন।

ইউক্রেন বলছে, রাশিয়ান সৈন্যরা ছয়-চুল্লির জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রটিকে একটি সামরিক ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করছে এবং কর্মীদের বন্দুকের মুখে আটকে রাখা হয়েছে। তবে মস্কো এ দাবি অস্বীকার করেছে।

গত শুক্রবার, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জাপোরিঝিয়া, খেরসন, দোনেৎস্ক ও লুহানস্ককে রাশিয়ার সাথে সংযুক্তির ঘোষণা দিয়েছেন। পশ্চিমা বিশ্ব এর তীব্র সমালোচনা করে পুতিনকে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানালেও তিনি তাতে ভ্রুক্ষেপ করেননি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর