আপনি পড়ছেন

কাশ্মিরের রাজধানী শ্রীনগরে মাল্টি স্ক্রিনবিশিষ্ট সিনেমা হল চালু করেছে ভারত সরকার। ১৪ বছরের মধ্যে এই প্রথম কাশ্মিরে কোনো সিনেমা হল চালু হলো। তিন বছর আগে কাশ্মিরের স্বাতন্ত্র্য মর্যাদা কেড়ে নেয় ভারতের মোদি সরকার। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

cinema opens in kashmir city after 14 yearsশ্রীনগরে মাল্টি স্ক্রিনবিশিষ্ট সিনেমা হল চালু করেছে ভারত সরকার

বছরের পর বছর সংঘাতে ক্ষতবিক্ষত কাশ্মিরের মানুষ আতঙ্কে ভুগছিল। মানুষ বাধ্য হয়ে সিনেমা থেকে দূরে ছিল। শনিবার সকালের শোতে মাত্র এক ডজন দর্শককে টিকেটের লাইনে দেখা গেছে। সিনেমাটির নাম ‘বিক্রম ভেধা’। এটি বলিউডের অ্যাকশনধর্মী মুভি।

নতুন সিনেমা হলটি ৫২০ আসনের। এটি শ্রীনগরের উচ্চ নিরাপত্তা বেষ্টিত এলাকায় তৈরি করা হয়েছে। এখানেই রয়েছে ভারতীয় সামরিক বাহিনীর আঞ্চলিক হেডকোয়ার্টার। মুভি দেখতে আসা ফাহিম বলেন, বিভিন্ন জনের বিভিন্ন মত থাকতে পারে, তবে আমি মনে করি সিনেমা ভালো জিনিস। এটা উন্নয়নের লক্ষণ। তবে অনেকেই মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন।

ভাতরীয় প্রিমিয়ার মুভি বুকিং ওয়েবসাইট অনুসারে, শনিবার সকাল ও সন্ধ্যার শোতে ১০ শতাংশেরও কম দর্শক ছিল। দিল্লির গভর্নর মনোজ সিনহা গত ২০ সেপ্টেম্বর সিনেমা হলটি উদ্বোধন করেন। সিনেমা হলটি কাশ্মিরি একক ব্যবসায়ীর সঙ্গে যৌথ অংশীদারিত্বে স্থাপন করা হয়েছে।

গত মাসে মনোজ সিনহা দক্ষিণের কয়েকটি জেলায় সিনেমা হল উদ্বোধন করেছেন। তিনি বলেন, ভারত সরকার কাশ্মিরের জনগণের মাঝে বিনোদন ছড়িয়ে দিতে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। জনগণ শ্রীনগরে সিনেমা হল চায়।

সিনেমা হলগুলো যখন জেলখানা

১৯৮৯ সালে এক ঘটনার প্রেক্ষিতে শ্রীনগরে ব্যাপক ক্র্যাকডাউন চালায় ভারত সরকার। এরপর থেকেই সেখানকার জনগণ ভীষণ ভীত-সন্ত্রস্ত জীবন যাপন করে আসছে। বছরের পর বছর নানা সংঘাত চলতে থাকায় মানুষের মাঝে আনন্দ-বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা প্রায় উঠে গিয়েছিল।

এসব কারণে শ্রীনগরের আটটি সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যায়। ১৯৯০ দশকের প্রথম দিকে বন্ধ হয়ে যাওয়ার সিনেমা হলগুলো অস্থায়ী নিরাপত্তা ক্যাম্প, জেলখানা কিংবা জিজ্ঞাসাবাদের সেল হিসেবে ব্যবহার হতে শুরু হয়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর