আপনি পড়ছেন

ব্রাজিলে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে রোববার। তবে এই ভোটে বর্তমান প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো কিংবা লুলা দা সিলভা এককভাবে কেউ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাননি। ব্রাজিলের আইন অনুযায়ী, ভোটে জিততে হলে প্রার্থীকে ৫০ শতাংশের উপরে ভোট পেতে হয়। কিন্তু লুলা পেয়েছেন ৪৮.১ এবং বলসোনারো ৪৩.৫ শতাংশ ভোট। তাই দ্বিতীয় দফা নির্বাচনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ৩০ অক্টোবর সেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

brazil voteগতকালের ভোটে ৯৮.৮ শতাংশ ভোটার অংশ নিয়েছিলেন। ছবি : সংগৃহীত

খবরে বলা হয়, বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম গণতন্ত্রের দেশ ব্রাজিল। প্রথম দফার নির্বাচনে দেশটির জনগণ নির্বাচিত কোনো প্রেসিডেন্ট পেল না। এজন্য আগামী ৩০ অক্টোবর দ্বিতীয় রাউন্ড নির্বাচনের জন্য জনগণকে অপেক্ষা করতে হবে। বামপন্থী বা অতি ডানপন্থী কোনো প্রার্থীই সরকার গঠনের মতো জনসমর্থন পাননি। এজন্য দেশটির নির্বাচন কমিশন দ্বিতীয় রাউন্ড ভোট আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নির্বাচনে আরও ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে। কিন্তু তারা দুই জনপ্রিয় প্রার্থী বলসোনারো বা লুলার পক্ষে সমর্থন দেননি। তবে প্রথম রাউন্ডের ফলাফল অবাক করার মতো হয়েছে। কারণ ভোটের আগের জরিপগুলোতে লুলা অনেক এগিয়ে ছিলেন বলসোনারোর চেয়ে। সর্বশেষ ডাটাফোলহা সার্ভের জরিপে লুলা-বলাসোনারোর জনপ্রিয়তা ছিল যথাক্রমে ৫০-৩৬ শতাংশ।

ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অব পারনামবুকোর রাজনীতি বিজ্ঞানের অধ্যাপক নারা পাভাও বলেন, ‘লুলা ও বলসোনারোর মধ্যে এই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস আগে পাওয়া যায়নি।’

ইন্সপার ইউনিভার্সিটির রাজনীতি বিজ্ঞানের অধ্যাপক কার্লোস মেলো বলেন, ‘ভোটের ফলাফল আরও কঠিন লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে।’

টেনডেনসিয়াস কনসালটোরিয়ার রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ রাফায়েল কর্টেজ বলেন, ‘বলসোনারো ব্রাজিলের দক্ষিণ-পূর্বে ভাল করেছেন। এই অঞ্চলে রয়েছে জনবহুল সাও পাওলো, রিও ডি জেনিরো এবং মিনাস গেরাইসের মতো রাজ্য। তবে এই জনপ্রিয়তা বলসোনারোকে চূড়ান্তভাবে বিজয় দিতে পারেনি।’

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর