আপনি পড়ছেন

চতুর্থ এবং পঞ্চম টি-টোয়েন্টি জিতে সিরিজে লিড নেয় পাকিস্তান। ষষ্ঠ ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়ে সমতা টানে ইংল্যান্ড। তাই সপ্তম তথা শেষ ম্যাচটি রূপ নেয় অলিখিত ফাইনালে। যেখানে ৬৭ রানের বড় জয় পেয়েছে মঈন আলির নেতৃত্বাধীন ইংলিশ বাহিনী। কুড়ি ওভারের সিরিজ পকেটে পুরার পাশাপাশি গড়েছে নতুন এক রেকর্ড।

england team 7শেষ টি-টোয়েন্টি জিতেছে ইংল্যান্ড

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৩ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ২০৯ রান তোলে ইংল্যান্ড। জবাব দিতে নেমে ১৪২ রানে থেমেছে পাকিস্তানের ইনিংস। ঝড়ো ব্যাট করে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন অতিথিদের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ডেভিড মালান। সিরিজ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন ইংলিশদের আরেক হার্ডহিটার হ্যারি ব্রুক।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রানের দিক থেকে এটা পাকিস্তানের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বড় জয়। আগের সর্বোচ্চ জয়টি ছিল ৬৩ রানের। চলমান সিরিজেই সেই ম্যাচটা জিতেছিল সফরকারী দল। করাচি ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সেদিন আগে ব্যাট করে ২২১ রানের পাহাড়সম পুঁজি দাঁড় করায় ইংলিশরা। জবাব দিতে নেমে ১৫৮ রানের বেশি করতে পারেনি বাবর আজম অ্যান্ড কোং।

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ইংল্যান্ডের বড় পুঁজির পেছনে অবদান পাকিস্তানি ফিল্ডারদের। একের পর এক ক্যাচ মিসে মালান, ব্রুকদের নতুন জীবন দিয়েছেন স্বাগতিক ফিল্ডাররা। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে আরও চড়াও হয়েছেন অতিথিরা ব্যাটাররা। ৪৭ বলে ৭৮ রানের ইনিংস খেলেন মালান। ব্রুকের ব্যাট থেকে আসে ৪৬ রান। চতুর্থ উইকেট জুটিতে নিরবচ্ছিন্ন ১০৮ রানের জুটি গড়েন এই দুইজন।

লক্ষ্য তাড়ায় পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন পাকিস্তানের অন্যতম সেরা দুই ব্যাটসম্যান বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান। কিছুটা চেষ্টা করেছেন শান মাসুদ। কিন্তু ৪৩ বলে এই টপঅর্ডারের করা ৫৬ রান কেবল দলের পরাজয়ের ব্যবধানই কমাতে পেরেছে। এছাড়া ২৫ বলে ২৭ রান করেন খুশদিল শাহ।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর