আপনি পড়ছেন

ইসরায়েল কোন অভিযোগ বা বিচার ছাড়া প্রায় ৮০০ ফিলিস্তিনিকে আটক রেখেছে বলে জানিয়েছে একটি ইসরায়েলি মানবাধিকার গ্রুপ। ২০০৮ সালের পর এবারই সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ফিলিস্তিনিকে বন্দী করা হয়েছে।

israel detained 800 palestinians without trialবিনা বিচারে ৮০০ ফিলিস্তিনিকে আটক ইসরায়েলের

রোববার (২অক্টোবর) হামোকড নামের মানবাধিকার গ্রুপটি জানায়, বর্তমানে ৭৯৮ জন ফিলিস্তিনিকে তথাকথিত প্রশাসনিক বন্দী হিসেবে রেখেছে ইসরায়েল। এই প্রক্রিয়ায় নিরপরাধ ফিলিস্তিনিদের কয়েক মাস থেকে বছর পর্যন্ত কারাগারে রাখা হয়। এমনকি বন্দী ব্যক্তি নিজেও জানেন না তার অপরাধ কী।

হামোকড জানায়, চলতি বছর আটক ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা অন্যান্য বছরের চেয়ে বেশি। বছরের শুরুতে অবৈধ ইসরায়েলি বসতি স্থাপনকারীদের সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের বেশ কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে অধিকৃত পশ্চিম তীরে রাত্রিকালীন গ্রেপ্তার অভিযান পরিচালনা করে ইসরায়েলি পুলিশ।

ইসরায়েল জানায়, বিপজ্জনক জঙ্গিদের দমন করতে প্রশাসনিক বন্দী করা হয়। তবে মানবাধিকার গোষ্ঠী এবং ফিলিস্তিনিদের দাবি, এটি একটি অমানবিক ব্যবস্থা। যথাযথ প্রক্রিয়া ছাড়াই ফিলিস্তিনিদের মাসের পর মাস এমনকি বছরের পর বছর কারাগারে আটক থাকতে হয়। এমনকি কোন কোন বন্দী বিচার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য আমরণ অনশনে যেতে বাধ্য হন। এর ফলে ইসরায়েলি এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। 

এদিকে হামোকডের নির্বাহী পরিচালক জেসিকা মন্টেল বলেন, 'প্রশাসনিক আটক বা বন্দী একটি ব্যতিক্রমী ব্যবস্থা হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু ইসরায়েল বিনা বিচারে এই আটকের পাইকারি ব্যবহার করে। এটি বন্ধ করতে হবে। ইসরায়েল যদি তাদের বিচারের আওতায় আনতে না পারে, তবে অবশ্যই সমস্ত প্রশাসনিক বন্দীদের মুক্তি দিতে হবে।' 

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ জানায়, ইসরায়েল তার ৫৫ বছরের নৃশংস দখলদারিত্ব বজায় রাখার জন্য ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে থাকে।

এর আগে ২০০৮ সালের মে মাসে সর্বোচ্চ সংখ্যক ফিলিস্তিনিকে প্রশাসনিক বন্দী হিসেবে কারাগারে রেখেছিল ইসরায়েল।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর পশ্চিম তীর দখল করে ইসরায়েল এবং পরে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে এটিকে সংযুক্ত করে। অধিকৃত পশ্চিম তীরে বর্তমানে ৭ লাখ ইসরায়েলি বাস করছে যা আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে অবৈধ।

সূত্র: দ্য নিউ আরব

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর