আপনি পড়ছেন

সুইজারল্যান্ড সরকার সেদেশে জব্দকৃত রুশ সম্পদ ইউক্রেনকে দেওয়ার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে। ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি রাশিয়ার সরকার ও নাগরিকদের জব্দকৃত সম্পদ কিয়েভের কাছে হস্তান্তরের জন্য দ্বিতীয়বারের মতো দাবি জানানোর পর সুইজারল্যান্ড সরকারের একজন মুখপাত্র বলেছেন, জব্দকৃত সম্পদ কখনো হস্তান্তরযোগ্য নয়। খবর সুইজারল্যান্ড টাইমস।

switzerland central bank frontরাশিয়ার ৬৭৭ কোটি ডলারের সমপরিমাণ সম্পদ জব্দ করেছে সুইস কেন্দ্রীয় ব্যাংক

সুইজারল্যান্ড বলেছে, রাশিয়ার সরকারের যে রিজার্ভ এবং রুশ নাগরিকদের মালিকানাধীন যেসব সম্পদ জব্দ করা হয়েছে, সেগুলো বাজেয়াপ্ত হয়নি। সুইস কর্তৃপক্ষ এসব অর্থ ও সম্পদ কেবল জব্দ করেছে। জব্দ করার মানে হলো এ অর্থ ও সম্পদের মালিকরা আপাতত এগুলোতে হাত দিতে পারছেন না।

এ নিয়ে দুইবার রাশিয়ার সম্পদ চেয়ে সুইজারল্যান্ডের কাছে প্রত্যাখ্যাত হলেন ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। ইউক্রেন প্রধানমন্ত্রী ডেনিস শিমহালও একই দাবি করেছেন। তবে সুইজারল্যান্ড বরাবরই ইউক্রেনের দাবিতে না বলেছে।

গত ৭ জুলাই নাগাদ রাশিয়ার সরকার ও নাগরিকদের মালিকানাধীন ৬৭০ কোটি সুইস ফ্রাঁ (৬৭৭ কোটি মার্কিন ডলার) ও ১৫টি বাড়ি জব্দ করেছে সুইজারল্যান্ড। ইউক্রেনের পক্ষ থেকে বারবার এসব অর্থ-সম্পদ চাওয়া হলেও সুইজারল্যান্ড বলেছে, জব্দকৃত অর্থ-সম্পদের ওপর এখনও মালিকদের অধিকার বহাল রয়েছে। এ মালিকানা ছিনিয়ে নিলে তা হবে সম্পদের নিরাপত্তা ও মৌলিক সাংবিধানিক অধিকারের লঙ্ঘন।

সুইজারল্যান্ডের অর্থনৈতিক বিষয়াদি সম্পর্কিত সচিবালয়ের উপ-মুখপাত্র ফাবিয়ান মাইনফিশ গতকাল রুশ বার্তা সংস্থা রিয়া-নভোস্তিকে বলেছেন, সুইজারল্যান্ড সরকার রাশিয়ার অর্থ ও সম্পদ জব্দ করার একমাত্র কারণ হলো এগুলোর মালিকরা নিষেধাজ্ঞার আওতায় রয়েছেন। নিজেদের সম্পদে তাদের প্রবেশাধিকার বন্ধ রাখা হয়েছে, পার্থক্য এটুকুই। ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন দেখাতে দেশটির পুনর্গঠনের প্রয়োজনে এসব সম্পদ হস্তান্তরের কোনো ভাবনা সুইস সরকারের নেই।

এর আগে মে মাসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে (ডব্লিউইএফ) বক্তৃতায় জেলেনস্কি ‘দেশে দেশে রুশ সম্পদ খুঁজে বের করা ও জব্দ করার’ দাবি জানান। কিছুদিন পর ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী শিমহাল পশ্চিমা দেশগুলোতে জব্দকৃত আনুমানিক ৭৫ হাজার কোটি ডলারের রুশ সম্পদ তার দেশের পুনর্গঠনে ব্যবহারের প্রস্তাব দেন। সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনসহ কয়েকজন পশ্চিমা নেতাও একই ধরনের কথা বলেন। এরপর গত সপ্তাহে জেলেনস্কি আবারও জব্দকৃত সম্পদ ইউক্রেনকে দেওয়ার দাবি জানান।

সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ইগনাসিও কাসিস ইউক্রেনের কাছে এসব সম্পদ হস্তান্তরের সম্ভাবনা নাকচ করে বলেছেন, সম্পদ বাজেয়াপ্তের আইনি কাঠামো তৈরির সময় রাষ্ট্রশক্তি থেকে ব্যক্তিকে সুরক্ষার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। একইভাবে ফাবিয়ান মাইনফিশ বলেছেন, জব্দকৃত সম্পদ বাজেয়াপ্তের উদ্যোগ নিলে তা হবে নিষেধাজ্ঞাভূক্ত ব্যক্তির সাংবিধানিক অধিকারের বড় ধরনের লঙ্ঘন।

সুইজারল্যান্ডের কর্মকর্তারা বলেছেন, রাশিয়ার সম্পদ হস্তান্তর ও ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন দুটি ভিন্ন বিষয়। সুইজারল্যান্ড ইউক্রেনকে সমর্থন দিয়ে যাবে এবং প্রয়োজনে দেশটির পুনর্গঠনে সহায়তা দেবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর