আপনি পড়ছেন

সম্প্রতি ইউক্রেনের চারটি অঞ্চল রাশিয়ান ফেডারেশনের অংশ হিসেবে ঘোষণা করে ডিক্রি জারি করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর একদিন পরই রুশ দখলীয় দোনেৎস্কের লিম্যান শহর পুনরুদ্ধার করে নেয় কিয়েভ বাহিনী। এমন অবস্থায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন সেনবাহিনীতে আরও লোক বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। এ লক্ষ্যে পূর্বে সামরিক অভিজ্ঞতা আছে এমন ২ লাখ লোককে সামরিক বাহিনীতে যুক্ত করেছে রাশিয়া। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

over 200000 drafted into russian army after putins decreeরাশিয়ান আর্মিতে ২ লাখ লোক নিয়োগ!

রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শইগু ঘোষণা দিয়েছেন, তিন লাখ সদস্য সামরিক বাহিনীতে নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। যাদের আগে থেকেই সামরিক অভিজ্ঞতা রয়েছে।

তবে সামরিক বাহিনীতে এই নিয়োগের ডিক্রিতে নির্দিষ্ট করে সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি। কর্মকর্তারা মনে করছেন, প্রকৃত সংখ্যা জানানো হলে জনমনে ভয় কাজ করতে পারে।

এদিকে ক্রেমলিন জানিয়েছে, পুতিন ইউক্রেনের দখলীয় অঞ্চলকে রাশিয়ার অন্তর্ভুক্তির আইনে মঙ্গলবার স্বাক্ষর করেছেন। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, এই স্বাক্ষরের মাধ্যমে অঞ্চলগুলোর আইনি স্বীকৃতি পেল। এর আগে রাশিয়ান পার্লামেন্টে নতুন অঞ্চলগুলোকে অন্তর্ভুক্তির অনুমোদন দেওয়া হয়। নতুন চার অঞ্চল হলো- জাপোরিঝিয়া, খেরসন, দোনেৎস্ক এবং লুহানস্ক।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু হয়। এর জেরে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র দেশগুলোর আরোপ করা ব্যাপক নিষেধাজ্ঞার মুখে রয়েছে রাশিয়া। যুদ্ধবিরতি কার্যকর করা নিয়ে কোনো পদক্ষেপ দেখা যায়নি। তবে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান এ বিষয়ে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন।

ইউক্রেনের চারটি অঞ্চল রাশিয়ার সাথে অন্তর্ভুক্তির পর মনে হচ্ছিল, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট যুদ্ধ বন্ধের ঘোষণা দেবেন। কিন্তু তা হয়নি। তবে ক্রেমলিনের একটি বক্তব্য এসেছে, ইউক্রেন আলোচনা এড়িয়ে যেতে চাচ্ছে।

কিয়েভ বাহিনী লিম্যান শহর দখল করায় যুদ্ধবিরতির চিন্তা এখন কোনো পক্ষের মধ্যেই নেই বলে ধরে নেওয়া যায়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর