আপনি পড়ছেন

নিজের নবজাতকদের নাম রাখতে অনেকেই ঝক্কি-ঝামেলার মধ্যে পড়েন। বিশেষ করে নিজের নাম, বংশ, আভিজাত্য সব মিলিয়ে সন্তানের নাম রাখা আসলেই একটি কঠিন কাজ। এই কঠিন কাজটিকেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন নিউ ইয়র্কের বাসিন্দা টেলর এ হামফ্রে। শুনতে কিছুটা অদ্ভূত হলেও এ পেশা থেকে কোটি টাকা উপার্জন করেছেন তিনি।

new born babyনবজাতক

২০১৫ সালে এই কাজ শুরু করেন টেলর। সেই থেকে সদ্যোজাতদের জন্য নিখুঁত ও মানানসই নাম ঠিক করে দেওয়াই টেলরের নেশা ও পেশা। তিনি জানান, সাধারণভাবে সন্তানদের নামকরণ করতে পিতামাতার কাছ থেকে দেড় লক্ষ টাকা করে নেন টেলর। তবে কাজটা জটিল হলে কখনো কখনো সাত-আট লক্ষ টাকা পর্যন্ত পারিশ্রমিক নেন।

টেলর জানান, এ বছরেই তিনি শতাধিক বাচ্চাদের নামকরণ করেছেন। তার দেওয়া পরিষেবার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, বাচ্চাদের নাম রাখার ক্ষেত্রে বাবা-মায়েরা তাঁর সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন। পাশাপাশি অভিভাবকদের কাছে নামের তালিকা পাঠান টেলর। যেখান থেকে বাবা-মায়েরা নিজেদের সন্তানদের জন্য পছন্দমতো নাম বেছে নিতে পারেন।

taylor a humphreyটেলর এ হামফ্রে

টেলর বলেন, যে কারো নামের সাথে সাধারণত তার সংস্কৃতি ও মূল্যবোধ অন্তর্নিহিত রয়েছে। সেক্ষেত্রে পরিবারের পূর্বপুরুষদের নাম বিশ্লেষণ করেই নামের এই তালিকাটি প্রস্তুত করেন তিনি। এক্ষেত্রে অনেক সময় বাবা-মায়ের ব্যবসা ও পেশার সাথে মিলিয়েও সন্তানদের নামকরণ করে থাকেন তিনি। সেক্ষেত্রে তার ফি-টা বেড়ে গিয়ে আট লাখ টাকায় গিয়ে ঠেকে।

টেলর বলেন, ইনস্টাগ্রামে অভিনব কিছু নাম পোস্ট করার পর থেকে অনেকেই এই বিষয়ে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে বাচ্চাদের নামকরণের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

এই নামকরণিকের দাবি, শিশুর নামকরণ প্রক্রিয়ায় অভিভাবকদের সাহায্য করে তিনি খুব মহৎ কাজ করছেন। তবে কিছু ক্ষেত্রে সদ্যোজাতের নামকরণ নিয়ে তাঁকে প্রচুর ঝক্কি পোহাতেও হয়। কারণ কিছু কিছু বাচ্চার অভিভাবকদের কোনো নামই পছন্দ হয় না, ফলে স্বাভাবিকের তুলনায় তাকে অনেক বেশি খাটতে হয়। তবে পরিশ্রমের যথাযথ মূল্যও পান টেলর। আর এ কারণেই কয়েক বছরের ব্যবসায় টেলর বর্তমানে বহু টাকার মালিক।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর