আপনি পড়ছেন

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একচ্ছত্র আধিপত্য দেখিয়েছে বৃষ্টি। অঘটন, প্রকৃতির কান্না- সবমিলিয়ে এবারের মহাযজ্ঞ বেশ জমজমাট। দুই গ্রুপেই জমে উঠেছে লড়াই। গ্রুপ-১ থেকে ইতোমধ্যে বিদায় নিয়েছে আফগানিস্তান। গ্রুপের বাকি পাঁচ দল নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ডের আশা আছে। শীর্ষ দুই দল উঠবে সেমিফাইনালে।

aron finch australiaটি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা ধরে রাখা নিয়ে চিন্তিত অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ

সুপার টুয়েলভের পঞ্চম রাউন্ডে মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া-আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা। শেষ ম্যাচের আগে দেখে নেওয়া যাক কোন দলের জন্য কী সমীকরণ অপেক্ষা করছে:

নিউজিল্যান্ড: চার ম্যাচে পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ-১ এর শীর্ষে আছে নিউজিল্যান্ড। তাদের সমান পয়েন্ট ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ারও। তবে রান রেটে এগিয়ে আছে কিউইরা। কাজেই আয়ারল্যান্ডকে হারাতে পারলেই সেমিতে উঠে যাবে নিউজিল্যান্ড। জিতেও বাদ পড়তে পারে কিউইরা। তবে সেটা হবে অলৌকিক। অস্ট্রেলিয়া যদি আফগানিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারায় এবং রান রেটে টপকে যায় তখনই কেবল বাদ পড়বে নিউজিল্যান্ড। কিউইরা অল্প রানের ব্যবধানে হারলেও সুযোগ থাকবে। সেক্ষেত্রে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে হারতে হবে। সেক্ষেত্রে ছয় পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শ্রীলঙ্কা উঠবে সেমিফাইনালে।

ইংল্যান্ড: ইংল্যান্ডের জন্যও সমীকরণটা প্রায় নিউজিল্যান্ডের মতো। তাদের অবস্থান দুইয়ে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিতলেই টিকিট পেয়ে যাওয়ার কথা ইংলিশদের। তবে সেক্ষেত্রে রান রেটে এগিয়ে থাকতে হবে জস বাটলারদের। অন্যথায় জিতেও বাদ পড়তে পারে তারা। তবে হারলেও সুযোগ থাকবে ইংলিশদের। সেক্ষেত্রে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে হারতে হবে। তখন গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শ্রীলঙ্কা উঠবে সেমিফাইনালে। ওই সময় ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও আয়ারল্যান্ডের পয়েন্ট হবে সমান পাঁচ। তখন বিবেচনায় আসবে রান রেট।

অস্ট্রেলিয়া: ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের জন্য সেমিফাইনালে যাওয়া যতটা সহজ ততটাই কঠিন অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে। কারণ ভাগ্য আর নিজেদের হাতে নেই তাদের। আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিততেই হবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ও স্বাগতিকদের। শুধু তাই নয়, অন্য ম্যাচে হারতে হবে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডকে। এই তিনটি দলই যদি শেষ ম্যাচে হারে তখন শীর্ষ দল হিসেবে শ্রীলঙ্কা উঠবে সেমিফাইনালে। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও আয়ারল্যান্ডের পয়েন্ট হবে সমান পাঁচ। তখন হিসেব হবে রান রেটের।

শ্রীলঙ্কা: অস্ট্রেলিয়ার মতোই সেমিফাইনালে যাওয়া কঠিন শ্রীলঙ্কার জন্য। শেষ ম্যাচে তাদেরও জিততে হবে। একই সঙ্গে তাদের দুয়ো দিতে হবে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে। দুই দলের কোনো দল হারলে সুযোগ থাকবে শ্রীলঙ্কার। তবে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের আগে নিজেদের কাজটা সেরে রাখতে হবে। জয়ের পরই তাদের অন্য হিসেব কষতে হবে।

আয়ারল্যান্ড: গাণিতিক হিসেবে আয়ারল্যান্ডের সেমিফাইনালের সুযোগ থাকলেও যা কার্যত প্রায় অসম্ভব। তিন পয়েন্ট তাদের। শেষ ম্যাচে তাদের জিততে হবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। সেটাও বিরাট ব্যবধানে। এরপর তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যদের দিকে। ইংল্যান্ড ও অস্টেলিয়াকে হারতে হবে অবিশ্বাস্য কোনো ব্যবধানে। এত সমীকরণ অবশ্য মিলে যাওয়ার কথা নয়।

গ্রুপ-১: ৬ দলের পয়েন্ট ও রান রেট:

নিউজিল্যান্ড (৫ পয়েন্ট): +২.২৩৩

ইংল্যান্ড (৫ পয়েন্ট): +০.৫৪৭

অস্ট্রেলিয়ার (৫ পয়েন্ট): -০.৩০৪

শ্রীলঙ্কা (৪ পয়েন্ট): -০.৪৫৭

আয়ারল্যান্ড (৩ পয়েন্ট): -১.৫৪৪

আফগানিস্তান (২ পয়েন্ট): -০.৭১৮