আপনি পড়ছেন

১৮ বলে ৪৮ রানের কঠিন চ্যালেঞ্জ ছিল আফগানিস্তানের সামনে। সমীকরণ মেলানোর সম্ভাব্য সব চেষ্টাই করেছে আফগানরা। শেষ পর্যন্ত শেষ ওভারে হেরে গেল তারা। শেষ তিন ওভারে মোহাম্মদ নবির দল তুলেছে ৪৩ রান। এটাই বা কম কিসে! চার রানের স্বস্তির জয় দিয়ে বেঁচে থাকল অস্ট্রেলিয়ার স্বপ্ন।

australia s celebrations were mutedআফগানিস্তানের আরও একটি উইকেটের পতন। উল্লাসে মেতে ওঠে অস্ট্রেলিয়া। আজ অ্যাডিলেডে

আজ অ্যাডিলেড ওভারে সুপার টুয়েলভ পর্বে গ্রুপ-১ এ নিজেদের শেষ ম্যাচে আট উইকেটে ১৬৮ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ তোলে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে গুলবাদিন নাঈব ও রশিদ খান ঝড়ের সুবাদে ৭ উইকেটে ১৬৪ রান তুলতে সক্ষম হয় আফগানিস্তান। এই হারে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের একমাত্র দল হিসেবে জয়শূন্যভাবে দেশে ফিরবে আফগানরা।

টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের শুরুর দিকে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলতে থাকে অস্ট্রেলিয়া। তবে রানের চাকা সচল ছিল তাদের। তিন উইকেটে ৫৪ রানে পাওয়ার প্লে শেষ করে অজিরা। এ সময় ঝড় ওঠে মিচেল মার্শ ও ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাটে। যদিও ফিফটি পাননি কেউ। ওয়ার্নার ১৮ বলে ২৫ এবং মার্শ ৩০ বলে ৪৫ রানে আউট হন।

david warner consoles rashid khanফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট আইপিএল থেকে বন্ধুত্ব হয় ডেভিড ওয়ার্নার ও রশিদ খানের

এরপর তা-ব শুরু হয় গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে। ৩২ বলে ৫৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন এই অলরাউন্ডার। যেখানে তার সঙ্গী মার্কাস স্টয়নিস ২১ বলে করেন ২৫ রান। অস্ট্রেলিয়ার পতন হওয়া উইকেটের সর্বোচ্চ তিনটি নিয়েছেন নাভিন-উল-হক। দুটি শিকার ফজলহক ফারুকির। একটি করে উইকেট পান রশিদ ও মুজিব উর রহমান।

রান তাড়ায় শুরুটা ভালো ছিল না আফগানিস্তানেরও। ষষ্ঠ ওভারে ৪০ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারায় তারা। ১৭ বলে রহমানউল্লাহ গুরবাজ ৩০ রান করলেও সাত বলে দুই রানে ফেরেন আরেক ওপেনার উসমান গনি। তবে আফগানদের আসল খেসারত দিতে হয়েছে ইব্রাহিম জাদ্রানের প্রস্তর যুগের ব্যাটিংয়ে।

এদিন ৩৩ বলে ২৬ রান করেছেন জাদ্রান। চারে নামা নাইব ২৩ বলে করেন ৩৯ রান। ১৫তম ওভারে ১০৯ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারানো আফগানরা হারার আগে হারল না। দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান রশিদ। ২৩ বলে ৪৮ রানের টর্নেডো ইনিংসে অপরাজিত থাকেন আফগান এই স্পিনার। ১৩ বলে ১৫ রানে ফেরেন ডরিস রাসুলি। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন প্যাট কামিন্স ও অ্যাডাম জাম্পা।

অবশ্য জিতলেও সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত হয়নি অস্ট্রেলিয়ার। তাদের তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে আগামীকালকের ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে। এই ম্যাচে ইংলিশরা জিতলে উঠে যাবে শেষ চারে। শ্রীলঙ্কা জিতলে অবশ্য অজিরাই উঠে যাবে পরের ধাপে। ইংলিশরা জিতলে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড- তিনটি দলেরই পয়েন্ট হবে সমান ৭। রান রেটে পিছিয়ে থাকায় বিদায় তখন বিদায় নিতে হবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে।