আপনি পড়ছেন

ভেজা মাঠে জোর করে বাংলাদেশকে খেলতে নামিয়ে দেওয়া এবং বিরাট কোহলির 'ফেক ফিল্ডিং' নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছেই। বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে ভারতের প্রতি আইসিসির পক্ষপাতের অভিযোগ করেছিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। আইসিসির বিরুদ্ধে ভারতকে সুবিধা দেওয়ার অভিযোগ তুলেন আফ্রিদি। তার এই অভিযোগ নিয়ে এবার মুখ খুললেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নতুন সভাপতি রজার বিনি।

afridi roger binnyভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি রজার বিনি ও পাকিস্তানের ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি

রজার বিনি বলেন, ভারতকে জামাইআদর করছে আইসিসি, এ রকম ভাবার কোনো কারণ নেই। তিনি বলেন, যা বলা হচ্ছে একেবারেই ঠিক নয়। তাদের কোনো রকম বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে না আইসিসি। তারা বাকি দলগুলোর চেয়ে বাড়তি কী পাচ্ছে? বিশ্ব ক্রিকেটে ভারত একটা বড় শক্তি। কিন্তু এজন্য তাদের আলাদা কোনো সুবিধা দেওয়া হয় না। সব দলকেই আইসিসি সমান চোখে দেখে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ৫ রানে হারে বাংলাদেশ। ম্যাচে বৃষ্টি শেষ হতেই বাংলাদেশকে মাঠে নামানো নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। আম্পায়ারদের সঙ্গে তর্কেও জড়াতে দেখা যায় তাকে। এছাড়া কোহলির ‘ফেক ফিল্ডিং’ নিয়ে গণমাধ্যমে হতাশা প্রকাশ করেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটার নুরুল হাসান সোহান। তাদের সঙ্গে একমত পোষণ করেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদিও।

পাকিস্তানের সামা টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভারতের প্রতি পক্ষপাতের অভিযোগ করেন আফ্রিদি। তিনি বলেন, ‘টিভিতেই দেখা গেছে সাকিব এ বিষয়ে (ভেজা মাঠ) কথা বলেছেন। দেখাই যাচ্ছিল যে মাঠ ভেজা। মনে হয়, ভারতের দিকে পক্ষপাত ছিল আইসিসির। তারা ভারতের সেমিফাইনালে যাওয়া নিশ্চিত করতে চেয়েছে। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আম্পায়াররাই কিন্তু বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচের দায়িত্বে ছিল। বিশ্ব জানে, তারাই সেরা আম্পায়ারের পুরস্কার পাবেন।’

বুধবার ভারত প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ১৮৪ রান তোলে। লোকেশ রাহুল ৫০ রান করেন। বিরাট কোহলি অপরাজিত থাকেন ৬৪ রানে। ১৬ বলে ৩০ রান করেন সূর্যকুমার যাদব। সেই রান তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশের জয়ের আশা বাড়িয়েছিলেন লিটন। তিনি ২৭ বলে ৬০ রান করে আউট হয়ে যান। বৃষ্টির জন্য এর পর বাংলাদেশের লক্ষ্য হয়ে যায় ১৬ ওভারে ১৫১ রান। কিন্তু ১৪৫ রানেই শেষ হয়ে যায় সাকিবদের ইনিংস। ৫ রানে ম্যাচ হেরে যায় বাংলাদেশ।

আফ্রিদি বলেন, ‘প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। সেই বৃষ্টি থামতেই খেলা শুরু করে দেওয়া হয়। এটা সত্য যে, অনেক কিছুর চাপ ছিল তখন। ভারত খেলছে, সেটাই একটা বড় চাপ। লিটন দাস খুব ভাল ব্যাটিং করল। খুব ইতিবাচক ক্রিকেট খেলেছে। ৬ ওভারের পর মনে হয়েছিল আর যদিও ২-৩ ওভার উইকেট না পড়ে, তা হলে বাংলাদেশ জিতে যাবে। বাংলাদেশ যে লড়াইটা করেছে তা প্রশংসনীয়।

আফ্রিদি বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে কারো খেলা থাকলে আইসিসিও চাপে থাকে। নানাভাবে ভারতকে জিতিয়ে দেওয়ার কৌশল করে তারা।  কারণ এর সঙ্গে অনেক কিছুই জড়িত।’

 

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর