আপনি পড়ছেন

গণছাঁটাইয়ের মাধ্যমে হাজার হাজার কর্মীকে বরখাস্তের পর তাদের কাউকে কাউকে আবারও চাকরিতে ফিরতে বলছে টুইটার ইনকর্পোরেটেড। ১০ দিন আগে টুইটার কেনার পর এরইমধ্যে প্রায় অর্ধেক কর্মীকে বাদ দিয়েছেন নতুন মালিক ইলন মাস্ক। খবর ব্লুমবার্গ।

twitter 5টুইটার

টুইটার সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার ছাঁটাইয়ের সময় এমন কিছু কর্মীকেও ছাঁটাই করা হয়েছে, যাদের কাজ ও অভিজ্ঞতার প্রয়োজন রয়েছে টুইটারের। তাদের কাছে চাকরিতে ফেরার কথা জানিয়ে ই-মেইল করেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। তবে বিষয়টি নিয়ে প্রকাশ্যে আলোচনা না করার অনুরোধও জানিয়েছে।

গত এপ্রিলে শোনা যায়, ইলন মাস্ক টুইটার কেনার প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছেন। মার্কিন ধনকুবের পরে সেটি কিনেও নেওয়ার ঘোষণা দেন। তবে একসময় টুইটার কর্তৃপক্ষের অসহযোগিতাী কথা উল্লেখ করে টুইটার কেনার চুক্তি থেকে ফিরে আসার কথা জানিয়েছিলেন মাস্ক। পরে বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ালে বিচারক টুইটার কেনার জন্য ইলন মাস্ককে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন। নির্ধারিত সময়সীমার শেষ হওয়ার আগের দিন ২৭ অক্টোবর টুইটার কিনে নেন মাস্ক।

elon musk 7ইলন মাস্ক

টুইটার কিনে নেওয়ার সপ্তাহখানেকের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেন মাস্ক। প্রথমেই সিইও পরাগ আগারওয়ালসহ শীর্ষ তিন নির্বাহীকে বরখাস্ত করেন। পুরো পরিচালনা পর্ষদকে সরিয়ে দিয়ে নিজেকে একমাত্র পরিচালক হিসেবে ঘোষণা করেন। বিশ্বব্যাপী টুইটারের হয়ে কাজ করা প্রায় অর্ধেক কর্মীকে চাকরিচ্যুত করেন, যার সংখ্যা প্রায় তিন হাজার ৭০০।

এরইমধ্যে তিনি টুইটারের ব্লু ব্যাজের জন্য মাসিক ফি বাড়িয়ে আট ডলার নির্ধারণ করেন। এ লক্ষ্যে টেকনিক্যাল কাজ সম্পন্ন করার জন্য টুইটারের কিছু কর্মীর সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল করে দৈনিক ১২ ঘণ্টা কাজ করার নির্দেশ দেন।

এসব বিষয়ে ইলন মাস্ক বলেন, প্রতিদিন যে বিপুল পরিমাণ লোকসান যাচ্ছে, তা ঠেকাতে এসব পদক্ষেপের কোনো বিকল্প ছিল না।

এদিকে কর্মীদের ছাঁটাই এবং তাদেরকে মধ্যে কাউকে কাউকে ফিরিয়ে আনার বিষয়টিকে অনেকে টুইটার পরিচালনার প্রক্রিয়ার দুর্বলতা বলে উল্লেখ করছেন।