আপনি পড়ছেন

কয়েক বছর আগে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়ালেও এখনও প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্ত। ঘরোয়া লিগে ধারাবাহিকভাবে দুর্দান্ত পারফর্ম করলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সমর্থকদের তিক্ততার কারণ এই তরুণ। এরপরও শান্তর মধ্যে আগামী দিনের বড় তারকা খেলোয়াড়ের ছাপ দেখছেন খালেদ মাহমুদ সুজন।

shanto and sujonশান্ত’র প্রতি অনেক বিশ্বাস রাখেন সাবেক ক্রিকেটার

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ক্যাপ মাথায় পরেন শান্ত। ডেব্যু ম্যাচে ১১ রান আসে রাজশাহীর এই ক্রিকেটারের ব্যাট থেকে। চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত খেলা এই ফরম্যাটের ১২ ম্যাচে কোনো ফিফটি হাঁকাতে পারেননি। ৪০ রানের ইনিংস ছিল তার সর্বোচ্চ। তাই ছোট ওভারের বিশ্বকাপে তার জায়গা পাওয়া নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। এজন্য নির্বাচকদের মুন্ডুপাতও করেছেন সমর্থকরা এবং ক্রিকেট বিশ্লেষকরা।

অবশ্য অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে নিজেকে নতুনভাবে চিনিয়েছেন শান্ত। স্ট্রাইকরেটের সাথে মানানসই না হলেও টানা ব্যর্থতা পেছনে ফেলে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পেয়েছেন রানের দেখা। দুটি অর্ধশতকের সাহায্যে পাঁচ ম্যাচে করেছেন ১৮০ রান। গত ৩০ অক্টোবর গ্রুপ পর্বে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলেন ৭১ রানের ইনিংস। বাংলাদেশের হয়ে চলমান আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ২৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

গণমাধ্যমকে সুজন বলেন, ‘শান্তকে নিয়ে এতো কথা হয় এটা ভেবেই আমার অবাক লাগে। আমি মনে করি, এটা একটা ছেলের প্রতি অবিচার। দলে জায়গা পেয়েছে এটা তার দোষ না। দোষ যদি হয়ে থাকে সেটা আমাদের টিম ম্যানেজম্যান্টের। এতো কথা হওয়ার পরও শান্ত দারুণ পারফর্ম করছে, এটা অসাধারণ বিষয়। আমি মনে করি, শান্ত ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম সেরা একজন ক্রিকেটার হবে।’