আপনি পড়ছেন

প্রেমের টানে মানুষ কী না করে! এক নারী শিক্ষক নিজের ছাত্রীর প্রেমে পড়ে উপায়ন্তর না পেয়ে লিঙ্গ বদল ঘটিয়ে পুরুষ বনে যান। এরপর সেই ছাত্রীকে বিয়েও করে নিয়েছেন ওই শিক্ষক। ভারতের রাজস্থান রাজ্যে ঘটেছে এ ঘটনা। খবর এনডিটিভি।

meera india studentবিয়ের অনুষ্ঠানে মীরা কুন্তাল ও কল্পনা

রাজস্থানের ভরতপুরের একটি স্কুলের শরীরচর্চা শিক্ষক ছিলেন মীরা কুন্তাল। এক সময় তিনি প্রেমে পড়ে যান নিজেরই ছাত্রী কল্পনা ফৌজদারের।

শেষপর্যন্ত লিঙ্গ বদল করে পুরুষ হন মীরা। এরপর বিয়ে করেন কল্পনাকে।

মীরা কুন্তাল পুরুষ হিসেবে নাম গ্রহণ করেছেন আরাভ কুন্তাল। তিনি বলেন, প্রেমের কাছে সবকিছু নস্যি। আমি আমার লিঙ্গ বদল করে নিয়েছি মাত্র।

মীরা বলেন, আমি নারী হিসেবেই জন্ম নিয়েছি। কিন্তু সবসময় নিজেকে পুরুষ অনুভব করতাম।

তাই অনেক সময় অস্ত্রোপচারের চিন্তা করতেন মীরা। ২০১৯ সালে প্রথম দেহে অস্ত্রোপচার চালান তিনি।

এদিকে কাবাড়ি খেলোয়াড় কল্পনাও মীরাকে ভালোবাসতেন। স্টেট লেভেলে কাবাডি খেলে নামও কুড়িয়েছেন কল্পনা। মূলত কল্পনাকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময় থেকেই মীরা ও কল্পনার মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

আগামী বছরের জানুয়ারিতে কাবাডি টুর্নামেন্ট খেলতে দুবাই যাবেন কল্পনা। তার আগেই বিয়ে সেরে ফেললেন দুজন।

কল্পনা বলেন, আমিও মীরাকে শুরু থেকেই ভালোবাসতাম। সে যদি সার্জারি নাও করতো, তারপরও তাকে বিয়ে করতাম।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর