আপনি পড়ছেন

লড়াইয়ের জন্য ১৬৮ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি দাঁড় করিয়েও ইংল্যান্ডের কোনো পরীক্ষাই নিতে পারলো না ভারত। জশ বাটলার ও অ্যালেক্স হেলসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১০ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে ইংলিশরা। সেই সাথে পাকিস্তানের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে জায়গা করে নিয়েছে বাটলার অ্যান্ড কোং। সেরার মুকুট পরার মিশনে আগামী ১৩ নভেম্বর মাঠে নামবে এই দুই দল।

india vs englandদাপুটে জয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড

লক্ষ্য তাড়ায় ভুবনেশ্বর কুমার, মোহাম্মদ শামি, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, হার্দিকদের নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করেছেন ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার বাটলার ও হেলস। উদ্বোধনী জুটিতে নিরবচ্ছিন্ন ১৭০ রান করার পথে বেশি অবদান রাখেন হেলস। ৮৬ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ৪৭ বলে চার চার এবং সাত ছয় হাঁকান হেলস। ৪৯ বলে ৯ চারের পাশাপাশি তিন ছয়ের মারে ৮০ রানের ইনিংস খেলেন দলপতি বাটলার। 

এর আগে ভারত এই পুঁজি পায় মূলত বিরাট কোহলি ও হার্দিক পান্ডিয়ার শেষের ঝড়ে। চতুর্থ উইকেটে এই দুইজন স্কোরবোর্ডে যোগ করেন মহামূল্যবান ৬১ রান। টুর্নামেন্টের চতুর্থ ফিফটি তুলে নিয়ে ক্রিস জর্ডানের শিকার হন কোহলি। ৪০ বলে চার চার এবং এক ছয়ের সাহায্যে ৫০ রান করেন সাবেক অধিনায়ক।

অবশ্য ব্যাট হাতে সবচেয়ে বেশি সফল ছিলেন হার্দিক। পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৬৩ রান করেন এই তারকা ক্রিকেটার। তার ৩৩ বলেল ইনিংসটা সাজানো ছিল চার চার এবং পাঁচ ছয়ের মারে। এছাড়া ২৭ রান করেন রোহিত শর্মা। এক বল বেশি মোকাবেলা করেন অধিনায়ক। ১০ বলে ১৪ রান করেন সূর্যকুমার যাদব। ইংল্যান্ডের হয়ে তিনটি উইকেট নেন জর্ডান। এদিন দলের সবচেয়ে খরুচে বোলারও ছিলেন তিনি। চার ওভারে দেন ৪৩ রান।