আপনি পড়ছেন

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চলমান আসরে বৃষ্টির জ্বালাতন কম সহ্য করেনি দলগুলো। কেউ কেউ অস্ট্রেলিয়ায় কেন এই সময়ে আসরটা দেওয়া হলো তা নিয়ে প্রশ্নও তুলেছেন। এবার ফাইনালেও থাকছে বেরসিক বৃষ্টির চোখ রাঙানি।

rain 1সেই মেলবোর্নে বৃষ্টির শঙ্কা

এমনটা হলে রিজার্ভ ডেতে খেলা হওয়া, এমনকি ট্রফি ভাগাভাগির সম্ভাবনার কথাও শোনা যাচ্ছে। এবার বৃষ্টি সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছে মেলবোর্নে। আর সেই মঞ্চেই আগামী রোববার হবে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ডের শিরোপা নির্ধারণী লড়াই।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে দেখা যাচ্ছে, ওই দিন মেলবোর্নে ১৫ থেকে ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টির ৯৫ শতাংশ সম্ভাবনা রয়েছে। শুক্রবার সকালে ক্রিকেটবিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে আবহাওয়া ব্যুরোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, বৃষ্টির প্রবল (শতভাগের কাছাকাছি) সম্ভাবনা রয়েছে মেলবোর্নে। শুধু বৃষ্টি নয়, বজ্রপাতেরও শঙ্কা থাকছে। যে পরিবেশে ম্যাচ চালিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

যদিও আইসিসি বৈরি আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে নক-আউট ম্যাচগুলোর জন্য একটি করে রিজার্ভ ডে রেখেছে। তাই ফাইনাল ম্যাচটি রোববার না হলে সোমবার তা মাঠে গড়াতে পারে। তবে সেদিনও মেলবোর্নে ৫ থেকে ১০ মিলিমিটার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে গ্রুপ পর্বে কিংবা প্রাথমিক পর্বের ম্যাচের ফল পেতে দুই দলকে কমপক্ষে ৫ ওভার খেলতে হয়। আর নক-আউট পর্বে অন্তত ১০ ওভারের ম্যাচ হতে হবে। যেটা আরও চিন্তার দুই ফাইনালিস্ট পাকিস্তান ও ইংল্যান্ডের জন্য।

নিয়মানুযায়ী শুরুতে গুরুত্ব দেওয়া হবে নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী রোববার ফাইনাল ম্যাচটি শেষ করা। ওভার কমিয়ে হলেও সেদিনই ম্যাচ শেষ করার চেষ্টা থাকবে আইসিসির। সেটাও সম্ভব না হলে বিবেচনায় নেওয়া হবে রিজার্ভ ডে। দুই দিন মিলিয়েও যদি ফল আনার জন্য ন্যূনতম ওভার খেলা সম্ভব না হয়, তাহলে দুই দলকে ট্রফি ভাগ করে দেওয়া ছাড়া কোনো পথ খোলা থাকবে না।

এর আগে ২০০২-০৩ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা ভাগ করে নিয়েছিল ভারত ও শ্রীলঙ্কা। সে সময় প্লেয়িং কন্ডিশন অনুযায়ী রিজার্ভ ডেতে নতুন করে খেলা হলেও ফল আসেনি। এছাড়া ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভারত ও নিউজিল্যান্ডের সেমিফাইনাল দুই দিন ধরে হয়।