আপনি পড়ছেন

নিত্যনতুন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির আবির্ভাবে বদলে যাচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রা। মানুষ ব্যাংকে গিয়ে চেক নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকার ভোগান্তি এড়াতে কার্ড দিয়ে এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলার সুযোগ পাচ্ছে। এখন সেই এটিএম ব্যবস্থাকে হটিয়ে অনেক এগিয়ে রয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং।

digital banking featureমোবাইল ব্যাংকিং লেনদেনে বাড়ছে আস্থা

মোবাইল ফোন রিচার্জ, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সেবার বিলের পাশাপাশি ঘরে বসে পরিশোধ করা যাচ্ছে ই-কমার্সের মাধ্যমে কেনা পণ্যের দাম। আর এসব কিছুই সম্ভব হচ্ছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে। মোবাইল আর্থিক সেবাদাতা (এমএফএস) প্রতিষ্ঠানে ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে লেনদেন ও গ্রাহকের পরিমাণ। সেপ্টেম্বর মাসে দেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন হয়েছে ৮৭ হাজার ৬৮৫ কোটি টাকা। এক মাসের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে ২৩৯ কোটি টাকা। আগস্টে লেনদেনের পরিমাণ ছিলো ৮৭ হাজার ৪৪৬ কোটি টাকা, সম্প্রতি এক রিপোর্টে এমন তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয়েছে ২৯২ কোটি ২৮ লাখ টাকা। যা আগস্টে ছিল প্রায় ২৯১ কোটি ৪৮ লাখ টাকা।

সেপ্টেম্বর শেষে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নিবন্ধিত গ্রাহকসংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ৫২ লাখ ৫৭ হাজার ৯৩২। এর মধ্যে পুরুষ ১০ কোটি ৭৩ লাখ ১০ হাজার ৫৪ এবং নারী গ্রাহক সাত কোটি ৭৫ লাখ ৩২ হাজার ৭৮২।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে এক মাসে ব্যক্তি থেকে ব্যক্তি পর্যায়ে ২৫ হাজার ১৫৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতা বাবদ বিতরণ হয় দুই হাজার ৭৫২ কোটি টাকা। বিভিন্ন পরিষেবার দুই হাজার ১৭৮ কোটি টাকার বিল পরিশোধ হয় এবং কেনাকাটায় তিন হাজার ১২৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়।

এদিকে লেনদেনে উৎসাহিত করতে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনে সীমা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন গ্রাহকরা দিনে এজেন্ট থেকে ৩০ হাজার টাকা এবং কার্ড থেকে ৫০ হাজার টাকা জমা করতে পারেন।

বিকাশ, নগদসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সেবা দিচ্ছে।