আপনি পড়ছেন

এবারের বিশ্বকাপের ম্যাচে সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে ওয়ানলাভ আর্মব্যান্ড পরার ঘোষণা দিয়েছিলেন ইংল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক হ্যারি কেন। কিন্তু সোমবার ফিফা হুমকি দেয় এ ধরনের কিছু করলে হলুদ কার্ড পেতে হবে। এরপর নিজের সিদ্ধান্ত বদলাতে বাধ্য হন ইংরেজ অধিনায়ক।

england captain did not wear the onelove armband for fear of a yellow cardহ্যারি কেন

সোমবার বিশ্বকাপে বি গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ইরানের মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড। এই ম্যাচেই ওয়ানলাভ আর্মব্যান্ড পরার কথা ছিল হ্যারি কেনের। অবশ্য খেলার সময় তার জার্সিতে এরকম কিছুই দেখা যায়নি। কাতারের রাজধানী দোহার খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ইরানকে ৬-২ গোলে পরাজিত করে বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করে ইংল্যান্ড।   

ফিফার শাস্তির ভয়ে সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানাতে না পারলেও বর্ণবাদের বিরুদ্ধে হাঁটু গেড়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ২৯ বছর বয়সী এই ইংরেজ স্ট্রাইকার। বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা ম্যাচ শুরুর আগে জানিয়েছিল, যারা আর্মব্যান্ড পরবে তারা নিষেধাজ্ঞার ঝুঁকিতে থাকবে।

উল্লেখ্য, মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ কাতারে এবারের বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট চলছে। কাতারের আইনে সমকামিতা নিষিদ্ধ। এজন্য ইউরোপের ৭টি দেশের অধিনায়করা সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানানোর লক্ষ্যে বিশ্বকাপের ম্যাচগুলিতে ওয়ানলাভ আর্মব্যান্ড পরার কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু ফিফার হুমকির পর তারা পিছু হটতে বাধ্য হন। 

সূত্র: স্কাই নিউজ