আপনি পড়ছেন

হিজাববিরোধী আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করতে গিয়ে বিশ্বকাপের মঞ্চে জাতীয় সঙ্গীত না গেয়ে চুপ ছিলেন ইরানের ফুটবলাররা। প্রশাসনকে কড়া বার্তা দিতে তারা এ পন্থা অবলম্বন করেছিলেন। তবে এ কাজের জন্য তারা দেশে ফিরলে গ্রেপ্তারের মুখোমুখি হতে পারেন। খবর হিন্দুস্তানটাইমস।

iran team 1ইরানি দল খেলা শুরুর আগে জাতীয় সঙ্গীতে অংশ নেয়নি

ইরানের একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বকাপে খেলা শুরু হওয়ার আগে জাতীয় সঙ্গীত বাজানোর সময় নীরব থেকে প্রতিবাদ জানান ইরানের ফুটবলাররা। স্টেডিয়ামে হাজির অনেক সমর্থকও জাতীয় সঙ্গীত চলার সময় চুপ ছিলেন। সেই সঙ্গে ‘ইরানের জন্য স্বাধীনতা’ এবং ‘নারীদের স্বাধীনতা’র আন্দোলনকে সমর্থন করে তারা দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

দু’মাস আগে পুলিশী হেফাজতে মাহশা আমিনি নামে এক তরুণীর মৃত্যুর পর অব্যাহতভাবে বিক্ষোভ চলছে ইরানে। প্রশাসন দাবি করে, শারীরিক অসুস্থতার ফলেই মৃত্যু হয়েছে মাহশার। তবে বিক্ষোভকারীরা বলেন, অসুস্থতা নয়, বরং পুলিশী নির্যাতনেই তার মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই ইরানে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। সরকারি নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে এ পর্যন্ত তিন শতাধিক প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

মূলত এই আন্দোলনের সাথে নিজেদের একাত্মতা পোষণ করতেই জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া থেকে বিরত ছিলেন ইরানের ফুটবলাররা। এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক আইন এবং মানবাধিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক এবং অধ্যাপক ডেভিড ই. গুইন বলেন, জাতীয় সঙ্গীত না গেয়ে প্রতিবাদ করার কারণে দেশে ফেরার পর তারা গ্রেপ্তারের মুখোমুখি হতে পারে। শুধু তারা নন, তাদের পরিবারকে আটক করা হতে পারে।

টানা বিক্ষোভে ইরানে স্মরণাতীত কালের মতো অস্থির পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। দেশজুড়ে কয়েক মাস ধরে বিক্ষোভ চললেও সরকার নমনীয় হতে নারাজ। এ আন্দোলনে যুক্ত হওয়ার অপরাধে এরই মধ্যে বেশ কিছু সেলিব্রেটিকেও শাস্তির আওতায় নিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এ অবস্থায় ইরান প্রশাসন চাইবে না, উল্লেখযোগ্য কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠী বিক্ষোভকারীদের সমর্থন দিক। ফলে ফুটবলারদের ওপর খড়গহস্ত হওয়ার ব্যাপক আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে ডেভিড ই. গুইন বলেন, জনসাধারণের অবস্থান একটি সময় পর্যন্ত খেলোয়াড়দের রক্ষা করতে পারে, বিশেষ করে যখন তারা বিশ্বকাপে ইরানের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নেওয়া হবে না, এমনটি ভাবা কঠিন। বরং তারা ও তাদের পরিবারের ওপর কঠিন পরিণতি নেমে আসতে যাচ্ছে বলাই যায়।

প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে ২-৬ গোলে হেরে গেছে ইরান।