আপনি পড়ছেন

মধ্যপ্রাচ্যে চলমান কাতার বিশ্বকাপে ‘বড়’ দলগুলোকে ভালোই বেগ পেতে হচ্ছে। ফেভারিট কিছু দল অবশ্য প্রত্যাশিতভাবেই জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে। জয় দিয়ে মিশন শুরু করেছে স্পেনও। তবে লা রোজাদের জয় ছাড়িয়ে গেছে প্রত্যাশার সীমা। বুধবার রাতে ‘ই’ গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকাকে স্রেফ খড়কুটোর মতো উড়িয়ে দিয়েছে।

spain thrashed costa ricaঅবিশ্বাস্য জয়ে শুরু স্পেনের

গতকাল রাতে লুইস এনরিকের দল উত্তর আমেরিকান জায়ান্টদের ৭-০ গোলে চূর্ণ করেছে। দুঃস্বপ্নের একটা রাতই কাটল ক্রোয়েশিয়া গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের! স্পেনের হয়ে জোড়া গোল করেছেন ফেরান তোরেস। দুই অর্ধে দুই গোল করেন এই তরুণ তুর্কি। প্রথমার্ধে তিন গোল করা স্পেন বিরতির পর করেছে আরও চারটি। বিশ্বকাপে তাদের সূচনাটা এরচেয়ে ভালো হতে পারতো না।

দোহার থুমামা স্টেডিয়ামে কোস্টারিকার বিপদসীমার ওপর ঝড় শুরু হয় ১১ মিনিটে। শেষ হয় দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে। ড্যানি ওলমোর গোলে উৎসবের শুরু; ইতি টানেন আলভারো মোরাটা। স্কোর শিটে নাম তোলেন মার্কো অ্যাসেনসিও, গাবি, সোলারও। মোরাটা ও ওলমো একটি করে অ্যাসিস্টও করেছেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন তোরেস।

তবে সাত গোলের ম্যাচের সেরাটা এসেছে গাবির পা থেকে। দারুণ এক ভলিতে বার্সেলোনা ফরওয়ার্ড যে গোলটা করেছেন সেটা অনেক দিন মনে থাকার কথা দর্শকদের। এই গোলে দারুণ একটা কীর্তি হয়ে গেল তার। স্পেনের সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপে জালের দেখা পেলেন তিনি। তবে রেকর্ডে তিনি তৃতীয় সর্বকনিষ্ঠ। বিশ্বকাপে সবচেয়ে কম বয়সী গোলদাতা ব্রাজিল মহাতারকা পেলে।

দাপুটে এই জয়ের ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নক আউট পর্বে যাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে গেল স্পেন। কেননা গ্রুপের অন্য ম্যাচে যে অঘটনের শিকার হয়েছে জার্মানি! এগিয়ে থেকেও জাপানের কাছে ২-১ গোলে হেরে গেছে চারবারের চ্যাম্পিয়নরা। এতে করে টানা দ্বিতীয় আসরে গ্রুপপর্ব থেকে বিদায়ের আশঙ্কায় পড়ল ইউরোপিয়ান পাওয়ার হাউজ দলটি।