আপনি পড়ছেন

এই মুহূর্তে সার্বিয়াও সুবিধাজনক দল নয় ফেভারিটদের কাছে। কাতার বিশ্বকাপে একের পর এক বড় দলের ধাক্কা খাওয়ার পর এই দলকে নিয়েও ভাবতে হচ্ছে সবাইকে। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবাররাত ১টায় সার্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে ব্রাজিল। যে ম্যাচে সেলেসাওদের তুরুপের তাস হতে পারেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র।

viniভিনিসিয়াস জুনিয়রের প্রথম বিশ্বকাপ

রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এই তরুণের এটাই প্রথম বিশ্বকাপ। শুরুতেই বাজিমাত করতে চান ভিনিসিয়াস। গতির সঙ্গে চমৎকার কিছু ড্রিবলিংও রপ্ত করেছেন তিনি, যা দিয়ে প্রতিপক্ষ দলের স্বপ্নকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছারখার করে দিতে পারেন।

সেজন্য ম্যাচের আগে সতীর্থ রাফিনহার কন্ঠেও ভিনিসিয়াসকে নিয়ে প্রশংসা, 'ভিনিসিয়াস খুবই গতিময় ফুটবলার। সে খেললে আমরা দ্রুতগতির একজনকে পাব। সে সহজেই তার গতি দিয়ে প্রতিপক্ষের প্রতিরোধ ভেদ করতে পারে। তবে প্লেয়ার হিসেবে পাকেতার আক্রমণাত্মক ভূমিকা দলকে আরও বিপজ্জনক বানাতে পারে।'

যদিও ব্রাজিলের মূল তারকা নেইমার। গত দুটি বিশ্বকাপেও ঝলক দেখান তিনি। তবে ব্রাজিল সেভাবে কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যে পৌঁছাতে পারেনি। এবার কাতারে তিনিও হয়তো নব উদ্যোমে চোখজুড়ানো পারফরম্যান্স উপহার দিতে চাইবেন। আজ থেকে সেই মিশন শুরু হলো। নেইমার, ভিনিসিয়াস, রদ্রিগো, জেসুস, রাফিনহা, রিচার্লিসন-এদের নিয়ে ভয়ংকর এক আক্রমণভাগ ব্রাজিলের। তারাও চাইছেন আক্রমণকে পুঁজি করে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে। যেমনটা বলেছেন রিচার্লিসন।

রাফিনহার সঙ্গে অনেকটা একমত পোষণ করেন তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে বেশিসংখ্যক খেলোয়াড়কে ওপরে খেলানোর পক্ষপাতী। বেশি খেলোয়াড় মানেই পায়ে বেশি বল, আমার নিজের জন্যও এটা সুবিধার। আমি বেশি পাস পাব, সুতরাং বেশি করে গোলের সুযোগ তৈরি হবে। আমি ব্রাজিলের নাম্বার নাইন হিসেবে সেটিই চাই।'

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর