আপনি পড়ছেন

ফেভারিট কোনো দল নয় সুইজারল্যান্ড, তবে বিশ্বকাপের আসরগুলোতে মাঝে মধ্যেই চমকে দেয় তারা। এবারো তেমন কিছুর অপেক্ষায় দলটি। ১৯৩৪, ১৯৩৮ ও ১৯৫৪ আসরে সেরা আটে খেলেছে সুইসরা।

swzসুইজারল্যান্ডের দলও প্রস্তুত

গত চার বিশ্বকাপের তিনটিতেই গ্রুপ পর্ব পেরিয়েছে দলটি। ২০১০ আসরে চ্যাম্পিয়ন স্পেনকে হারিয়ে যাত্রা শুরু করলেও গ্রুপ পর্বের বাধা পেরোতে পারেনি তারা।

সুইজারল্যান্ডের বিশ্বকাপ স্মৃতিও মন্দ না। ১৯৩৪ সালে ইতালি বিশ্বকাপে অভিষেক হয় সুইসদের। অভিষেক আসরেই চমক দেখিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় দলটি। ১৯৩৮ সালে ফ্রান্স বিশ্বকাপেও কোয়ার্টার খেলেছে সুইজারল্যান্ড। ১৯৫৪ সালে ঘরের মাঠে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের শেষ আটে ফাইনালে পৌঁছে সুইসরা। সবমিলিয়ে মোট ১১টি বিশ্বকাপের সাক্ষী বর্তমানে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে পঞ্চদশ স্থানে থাকা সুইজারল্যান্ড।

এবার বিশ্বকাপের আগে উয়েফা নেশনস লীগে ছন্দ দেখিয়েছে মুরাট ইয়াকিনের দল। নেশনস লীগে সবশেষ ৫ ম্যাচের চারটিই জিতেছে। এর মধ্যে স্পেন ও পর্তুগালকেও হারিয়েছে সুইসরা। গত ইউরোতেও ভালো পারফরম্যান্স ছিল তাদের।

তারকা: কোচ মুরাত ইয়াকিন সেরাদের নিয়েই দল সাজিয়েছেন। রক্ষণভাগ, মাঝমাঠ সর্বত্রই রেখেছেন দক্ষদেরই। ২৬ সদস্যের দলে রেখেছেন মিচেল এবিশার, ফাবিয়ান রিডার, ব্রিল এমবোলো ও রুবেন ভার্গাসরা। তবে বড় তারকা গ্রানিত শাকা। ল আর্সেনালের এই মিডফিল্ডার বিশ্বকাপে সুইসদের নেতৃত্ব দেবেন। চলতি মৌসুমে গানারদের হয়ে ছন্দে রয়েছেন জাকা। প্রিমিয়ার লীগে ১৪ ম্যাচে ৩ গোল করেছেন তিনি। সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৩টি গোল। উয়েফা ইউরোপা লীগে ৫ ম্যাচে ১ গোল শাকার নামের পাশে।

কিংবদন্তি: ইয়ান সেমের, জাদরান শাকিরি, মিশেল ল্যাং-এরাই দলটির কিংবদন্তি খেলোয়াড়। বিশ্বকাপে এখনো সর্বোচ্চ অর্জন পায়নি সুইজারল্যান্ড। যে কারণে অনেকেই শূন্য হাতে বিদায় নেন। সঙ্গে অতৃপ্তির ঢেঁকুর।

কোচ: মুরাত ইয়াকিনের অধীনে দারুণ ফর্মে সুইজারল্যান্ড। ২০২১ সালে দলটির কোচের চেয়ারে বসেন। এরপর থেকে উন্নতির গ্রাফটা তরতর করে উপরের দিকে উঠতে থাকে। দারুণ ঝলক দেখিয়ে বিশ্বকাপের মূল আসরে জায়গা করে নেয় সুইসরা।

একনজরে
র‍্যাঙ্কিং: ১৫
প্রথম বিশ্বকাপ: ১৯৩৪
মোট বিশ্বকাপ: ১২বার
সর্বোচ্চ অর্জন: কোয়ার্টার ফাইনাল (১৯৩৪, ১৯৩৮ ও ১৯৫৪)

বেশি ম্যাচ: হারমান (১৫৮)
বেশি গোল: আলেকজান্ডার (৪২)
গ্রুপ পর্বে প্রতিপক্ষ: সার্বিয়া, ব্রাজিল, ক্যামেরুন

ফিকশ্চার
২৩ নভেম্বর ক্যামেরুন, বিকেল ৪টা
২৮ নভেম্বর ব্রাজিল, রাত ১০টা
২ ডিসেম্বর সার্বিয়া, রাত ১টা।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর