আপনি পড়ছেন

ম্যাচজুড়ে একের পর এক আক্রমণে দক্ষিণ কোরিয়ার রক্ষণকে ব্যস্ত রাখে উরুগুয়ে। ফরওয়ার্ডদের ব্যর্থতার পাশাপাশি তাদের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ায় গোলপোস্ট। অন্যদিকে সুযোগ তৈরি করেও জালের দেখা পায়নি এশিয়ার দলটি। শেষ পর্যন্ত গোলশূন্য ড্র হয়েছে এই দুই দলের লড়াই।

uruguay vs south koreaপয়েন্ট ভাগ করেছে দুই দল

এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচে ১৯ মিনিটে প্রথম স্পষ্ট সুযোগ আসে উরুগুয়ের সামনে। হোসে মারিয়া জিমেনেসের বাড়ানো বল থেকে ফেডেরিকো ভালভার্দের নেওয়া শট পোস্টের উপর দিয়ে চলে যায়। তিন মিনিট পর দলকে লিড এনে দিতে পারেননি ডারউইন নুনেজ। বিপজ্জনক জায়গায় লুইস সুয়াজের ক্রসে পা ছোঁয়াতে বর্থ হন লিভারপুলের তারকা স্ট্রাইকার।

২৭ মিনিটে বিপদ বাড়তে দেননি দক্ষিণ কোরিয়ার গোলরক্ষক কিম সিউং জু। মাঝমাঠ থেকে এগিয়ে এসে ডি বক্সের সামনে নুনেজের উদ্দেশ্যে পাস দেন অলিভেরা। নুনেজের আগেই বল নিয়ন্ত্রণে নেন জু। সাত মিনিট পর ম্যাচের প্রথম সুবর্ণ সুযোগ আসে দক্ষিণ কোরিয়ার সামনে। আট গজ দূর থেকে পোস্টের উপর দিয়ে মেরে হতাশ করেন হোয়াও উই জোও। 

ভাগ্য সুপ্রসন্ন থাকায় ৪৩ মিনিটে বেঁচে যায় দক্ষিণ কোরিয়া। এ সময় কর্ণার পায় উরুগুয়ে। ভালভার্দের নেওয়া শটে দারুণ এক হেড করেন দিয়েগো গোডিন। বল পোস্টে লেগে ফিরে আসে। গোলশূন্য থেকেই বিরতিতে যেতে হয় ল্যাটিন আমেরিকান জায়ান্টদের।

বিরতির পরও নিজেদের আক্রমণের ধার অব্যাহত রাখে উরুগুয়ে। পাল্টা আক্রমণ থেকে উরুগুয়ের রক্ষণ ভাঙার ব্যর্থ চেষ্টা চালায় দক্ষিণ কোরিয়াও। ৬৩ মিনিটে লুইস সুয়ারেজকে তুলে এডিনসন কাভানিকে মাঠে নামান আলানসো। তাতে ম্যাচের শেষ দিকে প্রতিপক্ষকে আরও চেপে ধরে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। তবে ফিনিশিংয়ের অভাবে গোলের দেখা পায়নি উরুগুয়ে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর