আপনি পড়ছেন

টুইটার নিয়ে সম্প্রতি যেসব ঘটনা ঘটছে, তাতে এই প্রশ্ন উঠছেই যে, শেষ পর্যন্ত টুইটার কি টিকবে, নাকি ইলন মাস্কের খামখেয়ালিতে ধ্বংস হয়ে যাবে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি। অনেকেই বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগে আছেন। কারণ তাদের যোগাযোগের একটি বড় সমস্যা দেখা দেবে। তবে একটি সূত্র দাবি করছে, টুইটার বন্ধ হয়ে গেলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়বে গণমাধ্যমকর্মী তথা সাংবাদিকরা।

twitter and journalismটুইটার ও সাংবাদিকতা

রয়টার্স ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব জার্নালিজমের নিক নিউম্যান বলেন, বেশিরভাগ সাংবাদিকই টুইটার ছাড়তে পারবেন না। কারণ, এটি তাদের কাজের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে ওঠেছে। অনেক সমস্যা, বিভ্রান্তি থাকা সত্ত্বেও এটাই সত্য যে, সাংবাদিকরা তাৎক্ষণিক আপডেটের জন্য এর ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে।

টুইটারের ব্যাপারে তিনি বলেন, এটি ছিল মানুষের সাথে যোগাযোগ করার একটি নতুন উপায় এবং বিশেষজ্ঞদের জন্য দুর্দান্ত একটি ব্যাপার। তবে টুইটারও এক সময় সাংবাদিকদের, সংবাদপত্রের প্রতিযোগী হয়ে ওঠে। বিশেষ করে যখন সন্ত্রাসী হামলা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটে, তখন জনসাধারণ খবরের জন্য নিউজ পোর্টালের চেয়ে টুইটারে বেশি ভীড় করে।

twitter 6টুইটার

নিউইয়র্ক টাইমসের কলামিস্ট ফরহাদ মঞ্জু ২০১৯ সালেই বলেছিলেন, টুইটার আমেরিকান সাংবাদিকতাকে ধ্বংস করছে।

কলম্বিয়া জার্নালিজম রিভিউয়ের ডিজিটাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞ ম্যাথিউ ইনগ্রাম বলেন, শুধু টুইটারে মনোযোগ দেওয়া সাংবাদিকরা অন্য সাধারণ মানুষের তুলনায় বিশ্বকে অনেক ভিন্নভাবে দেখে থাকেন। তবে তারা আশা করেন, সাংবাদিকরা ধীরে ধীরে এসব বিকৃতি মোকাবেলা করার জন্য যথেষ্ট বুদ্ধিমান হয়ে উঠেছে।

টুইটার বন্ধ হয়ে যাবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের বাটলার ইউনিভার্সিটির সমাজবিজ্ঞানী স্টিফেন বার্নার্ড বলেছেন, আমি মনে করি না টুইটার শীঘ্রই বন্ধ হয়ে যাবে। তবে সেটি হলে তা সাংবাদিকদের নিখোঁজ হওয়ার আশঙ্কার উপযুক্ত কারণ হিসেবে কাজ করবে। কারণ তারা অনেক বড়, শক্তিশালী ও বৈচিত্র্যময় সামাজিক নেটওয়ার্কের অ্যাক্সেস হারাবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর