আপনি পড়ছেন

আর্জেন্টিনার জয়টা যখন খুব দরকার ছিল ঠিক তখনই জ্বলে উঠলেন লিওনেল মেসি। নিজে করেছেন এক গোল, সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও একটি। তার জাদুকরি পারফরম্যান্সের সুবাদে বাঁচা-মরার ম্যাচে মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা। এই জয়ে নক আউট পর্বের আশা বেঁচে থাকল দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের।

messi 24জ্বলে উঠলেন লিওনেল মেসি

দলকে জেতানোর পাশাপাশি ব্যক্তিগত অর্জনে পরিসংখ্যানের পাতায় ঝড় তুলেছেন মেসি। একনজরে তা দেখে নেওয়া যাক:

বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে একই ম্যাচে গোল করা এবং অ্যাসিস্টের রেকর্ড গড়েছিলেন মেসি। সবচেয়ে বেশি বয়সে একই ম্যাচে গোল ও অ্যাসিস্টের নতুন কীর্তি গড়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। ২০০৬ বিশ্বকাপে সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের দিন মেসির বয়স ছিল ১৮ বছর ৩৫৭ দিন। শনিবার মেক্সিকোর বিপক্ষে ম্যাচের দিন মেসির বয়স ছিল ৩৫ বছর ১৫৫ দিন।

আর্জেন্টিনার জার্সিতে টানা ছয় ম্যাচে গোল করলেন মেসি। সবশেষ ২০১১-১২ মৌসুমে আলবিসেলেস্তেদের হয়ে টানা ছয় ছয় ম্যাচে জালের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছিলেন মেসি।

প্রথম আর্জেন্টাইন ফুটবলার হিসেবে সর্বোচ্চ পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলার রেকর্ড আগেই গড়েছেন। এবার সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলা ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে ছুঁয়ে ফেলেছেন তিনি। দুজনই আর্জেন্টিনার জার্সিতে ২১টি ম্যাচ খেলেছেন। আগামী বুধবার পোল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামলেই ম্যারাডোনাকে ছাড়িয়ে যাবেন মেসি।

বিশ্বকাপে মেসির গোল এখন আটটি। আর্জেন্টিনার ফুটবল ইতিহাসে ডিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে যৌথভাবে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলের নজির। সর্বোচ্চ ১০ গোল আছে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার।

বিশ্বকাপের মঞ্চে আর্জেন্টিনা সবশেষ ১৫ গোলের ১০টিতেই জড়িয়ে থাকল মেসির নাম (সাত গোল, তিন অ্যাসিস্ট)। তার মধ্যে সবশেষ চার গোলেই আছেন তিনি। নিজে তিন গোল করেছেন এবং সতীর্থকে দিয়ে করিয়েছেন একটি।

প্রথম ফুটবলার হিসেবে পাঁচটি আলাদা বিশ্বকাপে গোল করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে পাঁচটি বিশ্বকাপে অ্যাসিস্টের রেকর্ড গড়েছেন মেসি।

বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি সাতবার ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন রোনালদো। মেক্সিকোকে হারানোর পর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর রেকর্ডে ভাগ বসালেন মেসি। ২০০২ বিশ্বকাপ থেকে চালু হয়েছে ম্যাচ সেরার স্মারক দেওয়ার রেওয়াজ।

এ বছর মেসির মোট গোল হলো ৩০টি। পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে এ নিয়ে ১৪ বার এক ক্যালেন্ডারে অন্তত ৩০ গোল করলেন তিনি।

আর্জেন্টিনার জার্সিতে এটাই মেসির সেরা বছর। ২০০৪ সালে অভিষেকের পর এ বছরই সর্বোচ্চ ১৩টি গোল পেয়েছেন মেসি। এর আগে ২০১২ সালে জাতীয় দলের হয়ে ১২টি গোল করেছিলেন তিনি।

জাতীয় দলের জার্সিতে মেসির গোল সংখ্যা এখন ৯৩টি। আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় তিনি এখনও তিন নম্বরেই থাকলেন। তার ওপরে আছেন ইরানের আলি দাই (১০৯) ও পর্তুগালের রোনালদো (১১৮)।

ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে মেসির ম্যাচ এখন ৯৯৮টি। আর্জেন্টিনাকে নক আউট পর্বে নিলে এবং দুই ম্যাচ খেললে প্রথম আর্জেন্টাইন ফুটবলার হিসেবে ম্যাচ সংখ্যায় চার অংক ছুঁয়ে ফেলবেন মেসি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর