আপনি পড়ছেন

হট ফেভারিটের তালিকায় নেই। তবে চারবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে হিসেবের বাইরেও রাখা যায় না। অথচ সেই দলটা কিনা কাতার বিশ্বকাপ শুরু করল অঘটনের শিকার হয়ে! এগিয়ে থেকেও জাপানের বিপক্ষে ২-১ গোলে হেরে যায় জার্মানরা। ওই হারটা ইউরোপিয়ান পাওয়ার হাউজকে কোণঠাসা করে তুলেছে।

germanyজার্মানির সামনে আজ দুই প্রতিপক্ষ

সেই হিসেবে গ্রুপপর্বের বাকি দুই ম্যাচ জার্মানির জন্য বাঁচা-মরার উপলক্ষ্য। এমনই কঠিন চাপে থেকে আজ সাবেক চ্যাম্পিয়ন স্পেনের মুখোমুখি হচ্ছে হান্সি ফ্লিকের দল। এই ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই জার্মানদের। সেটা চারবারের বিশ্বসেরারাও জানে। কিন্তু জার্মানদের সাম্প্রতিক যা ফর্ম সেটাই কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলছে।

তা ছাড়া এবারের বিশ্বকাপে অবিশ্বাস্য এক জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে স্পেন। উত্তর আমেরিকার দল কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে চূর্ণ করছে লা রোজারা। এমন একটা দলের বিপক্ষে টিকে থাকার লড়াইয়ে নামতে হবে। জার্মানির চিন্তার শেষ সেই। বিশ্বকাপে দলটির দ্বিতীয় ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলে আরও বাড়বে দুশ্চিন্তা।

১৯৯৪ থেকে ২০১৮ বিশ্বকাপ পর্যন্ত সাতটি আসরের কেবল দুটিতেই গ্রুপপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে জিততে পেরেছে তারা। সবশেষ গত আসরে প্রথম রাউন্ডের দ্বিতীয় ম্যাচে ২-১ গোলে সুইডেনকে হারিয়েছিল জার্মানি। আর ২০০৬ বিশ্বকাপে ঘরের মাঠে গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে জার্মানরা ১-০ গোলে হারায় পোল্যান্ডকে।

বাকি পাঁচ আসরে গ্রুপপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচ হয় হেরেছে জার্মানি, নয়তো ড্র করেছে। এই দুষ্টচক্রে জার্মানদের আটকে যাওয়ার শুরুটা হয়েছিল ১৯৯৪ বিশ্বকাপে। সেই আসরে তাদের ১-১ গোলে রুখে দেয় স্পেন। কাকতালীয়ভাবে সেই স্প্যানিয়ার্ডরা আবারও এসেছে তাদের সামনে। জার্মানদের জন্য ম্যাচটা পুরোনো হিসেব চুকানোর সুযোগ।

তাই আজ কেবল স্পেনই নয়, ইতিহাসও জার্মানদের বিপক্ষ হয়ে থাকবে। তবে গত আসরে দ্বিতীয় ম্যাচে জিতলেও গ্রুপ পর্বেই ঝরে পড়ে ইউরোপের অন্যতম শক্তিশালী দল। এবারও শুরুতেই বাদ পড়ার আশঙ্কায় আছে তারা। স্পেনের বিপক্ষে পয়েন্ট হারালেই শেষ হয়ে জেতে পারে ফ্লিকের শিষ্যদের পথচলা।