আপনি পড়ছেন

পরপর দুই বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার আশঙ্কায় পড়েছিল জার্মানি। শেষ পর্যন্ত এ যাত্রায় বেঁচে গেল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের অন্তিম সময়ের গোলে স্পেনকে রুখে দিয়ে নক আউট পর্বের আশা বাঁচিয়ে রাখল হানসি ফ্লিকের দল। রোববার রাতে ‘অল ইউরোপিয়ান’ মহারণটা ১-১ গোলে ড্র হয়েছে।

germany celebrating a goal 2022স্পেনের জালে বল জড়িয়ে জার্মানির উল্লাস

‘ই’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে চূর্ণ করেছে স্পেন। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য ভালোই পরীক্ষা দিতে হলো স্প্যানিয়ার্ডদের। জার্মানির বিপক্ষে কেবল একটি গোলই পেয়েছে লা রোজারা। সেটাও ৬২ মিনিটে; আলভারো মোরাটার গোলের ওপর দাঁড়িয়ে জয়ের অপেক্ষাতেই ছিল তারা।

বিদায় চোখ রাঙাচ্ছিল জার্মানিকে। কিন্তু ম্যাচের শেষ দিকে ঘুরে দাঁড়ায় জার্মানরা। ম্যাচজুড়ে দুর্দান্ত খেলা জামাল মুসিয়ালার কাছ থেকে বল পেয়ে দারুণ এক শটে স্পেনের জালে বল জড়ান নিকলাস ফুলক্রাগ। সমতায় ফেরে দল। ম্যাচের বয়স তখন ৮৩ মিনিট। এই গোলের সুবাদে বিশ্বকাপ স্বপ্ন টিকে থাকল জার্মানির।

ম্যাচে আগে লিড নিতে পারতো জার্মানি। কিন্তু প্রথমার্ধে তাদের একটি গোল বাতিল হয় অফসাইডের ফাঁদে পড়ায়। অফসাইডের বাধা পেরিয়ে জর্ডি আলভার পাস থেকে স্পেনকে এগিয়ে নেন মোরাটা। লিড নেওয়ার পর লা রোজাটা রক্ষণাত্মক কৌশলে খেলা শুরু করে। সেটাই কাল হয়ে দাঁড়াল। মুহুর্মুহু আক্রমণের পর সমতায় ফেরে জার্মানি।

ম্যাচে কেবল স্পেন নয়, জার্মানির বর শত্রু ছিল ইতিহাসও। সবশেষ সাত আসরের দুটিতে কেবল গ্রুপপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচ জিততে পেরেছিল জার্মানরা। আবারও সেই চক্রে আটকে গেল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। জার্মানি যে ম্যাচে হারেনি সেটাই বরং সৌভাগ্যের। স্পেন নিজেদের দুর্ভাগা ভাবতে পারে। অপেক্ষায় থাকতে হলে তাদের।

এই ড্রয়ে ‘ই’ গ্রুপের লড়াইটা উন্মুক্ত হয়ে উঠল। নক আউট পর্বে যাওয়ার সুযোগ থাকল চারটি দলেরই। কার্যত চার পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্পেন। তিন পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে জাপান। সমান পয়েন্ট তিনে থাকা কোস্টারিকারও। এক পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে জার্মানি। এই গ্রুপের সব রোমাঞ্চ এখন তৃতীয় রাউন্ডে।

শেষ রাউন্ডের ম্যাচে স্পেনকে জিততে হবে। তাহলে কোনো সমীকরণে যেতে হবে না তাদের। তবে ড্র করলে তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যদের দিকে। জাপানের জন্যও জয়টা খুব দরকার। ড্র করলেও সুযোগ থাকবে তাদের। সেক্ষেত্রে গ্রুপের অন্য ম্যাচটা ড্র হতে হবে। তাহলে বিদায় নেবে জার্মানি। জাপান ড্র করলেও চলবে যদি শেষ ম্যাচে কোস্টারিকা ন্যূনতম ব্যবধানে হারে।

কারণ মুখোমুখি লড়াইয়ে জাপানই এগিয়ে আছে জার্মানদের চেয়ে। ইউরোপিয়ান পাওয়ার হাউজ অবশ্য কোস্টারিকার বিপক্ষে বড় ব্যবধানেই জয়ের আশায় থাকবে। সুযোগ আছে কোস্টারিকারও। জার্মানদের হারাতে পারলে সরাসরি শেষ ষোলোতে উঠে যাবে তারা। আবার জার্মানদের কেবল জিতলেই চলবে না, অমঙ্গল কামনা করতে হবে জাপানের জন্য।