আপনি পড়ছেন

চলমান কাতার বিশ্বকাপ শুরুর আগ মুহূর্তে বোমা ফাটিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ব্রডকাস্টার পিয়ার্স মরগানকে দেওয়া দেড় ঘণ্টার সাক্ষাৎকারে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বোর্ড, বর্তমান কোচ, সাবেক কোচ ও খেলোয়াড়ের তীব্র সমালোচনা করেছেন পর্তুগিজ যুবরাজ।

cristiano ronaldo christian pulisicক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ

‘সিআর সেভেনে’র ওল্ড ট্রাফোর্ড ভবিষ্যত নিয়ে তখনই দেখা দিয়েছিল প্রবল সংশয়। শেষ পর্যন্ত রোনালদোর সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে ইংলিশ ক্লাবটি। এবারের কাতার বিশ্বকাপ শেষে তারকা খেলোয়াড়রা যখন পুরোনো ক্লাবে ফিরে যাবেন, তখন রোনালদোকে খুঁজতে হবে মাথা গোঁজার ঠাঁই।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইএসপিএন'এর খবরে বলা হয়, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে রোনালদোর শূন্যস্থান পূরণ করার চেষ্টা চলছে। এই প্রক্রিয়ায় চেলসি ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচকে পছন্দ তাদের। তবে পাকাপাকি চুক্তিতে নয়, আপাতত ছয় মাসের জন্য ধারে মার্কিন ফরোয়ার্ডকে ওল্ড ট্রাফোর্ডে আনতে চায় রেড ডেভিলসরা।

নেদারল্যান্ডস ফরোয়ার্ড কোডি গাকপোর নামও শোনা যাচ্ছিল। ডাচ তারকা অবশ্য ইংলিশ ফুটবলে আসতে রাজি আছেন। ওদিকে রোনালদোকে চাইছে সৌদি আরবের একটি ক্লাব। যারা ২২৫ মিলিয়ন ডলার চুক্তিতে তিন বছরের জন্য পর্তুগিজ উইঙ্গারকে দলে টানার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

রোনালদোর শূন্যস্থান পূরণ করা ইউনাইটেডের জন্য সহজ হবে না। সময় নিয়েই সেটি করবে তারা। আপাতত কয়েক মাসের জন্য পুলিসিচকে দিয়ে কাজ চালানোর পরিকল্পনা ইংলিশ ক্লাবটির। মার্কিন ফরোয়ার্ড নিজেও চেলসিতে সুখে নেই। টমাস টুখেলের অধীনে শুরুর একাদশে খুব কমই সুযোগ মিলছে তার।

ইংলিশ একটি সংবাদমাধ্যমের খবর, গত গ্রীষ্মকালীন দলবদলেই ক্লাব ছাড়তে চেয়েছিলেন পুলিসিচ। কিন্তু তাকে কোনো সহযোগিতা করেনি চেলসি। আগামী চার সপ্তাহ পর শুরু হতে যাওয়া শীতকালীন দলবদলে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি তাকে ছাড়পত্র দিতে চাইবে কিনা সেটাও বড় প্রশ্ন।

অবশ্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড পুলিসিচকে চাইলেই হবে না, এ জন্য লড়াইয়ে নামা লাগতে পারে। মার্কিন ফরোয়ার্ডের ব্যাপারে আগ্রহ আছে ইংল্যান্ডের অন্য দুই ক্লাব আর্সেনাল ও নিউক্যাসল ইউনাইটেডের। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড অবশ্য ২০১৯ সালেও চেষ্টা করেছিল পুলিসিচকে আনতে; কিন্তু ওই সময় চেলসিতে যোগ দেন মার্কিন তারকা।