আপনি পড়ছেন

এক ম্যাচ বাকি থাকতে কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের বাধা পাড়ি দিয়েছে ব্রাজিল ও ফ্রান্স। তাদের দেখানো পথে হাঁটল ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগালও। সোমবার রাতে ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ইউরোপিয়ান জায়ান্টরা।

portugalউরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ইউরোপিয়ান জায়ান্টরা

পর্তুগালের দুর্দান্ত জয়ের নায়ক ব্রুনো ফার্নান্দেজ। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের দুটো গোলই করেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই ফরোয়ার্ড। তার হাতেই উঠেছে ম্যাচ সেরার পুরস্কার। প্রথম ম্যাচে ঘানার বিপক্ষেও সেরার স্বীকৃতি উঠেছিল তার হাতে। ওই ম্যাচে গোল না পেলেও দুটি অ্যাসিস্ট করে সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন তিনি।

আরও একবার বিশ্বমঞ্চে জ্বলে উঠলেন ফার্নান্দেজ। তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের ওপর দাঁড়িয়ে ল্যাটিন আমেরিকান দলগুলোর বিপক্ষে নিজেদের রোগ সারিয়েছে পর্তুগাল। উরুগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে ল্যাটিনদের সঙ্গে ৯ ম্যাচের কেবল একটিতেই জিতেছিল পর্তুগিজরা। সেই ‘জুজু’ তাড়িয়ে তারা উঠল নক আউট পর্বে।

দুই ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে পর্তুগাল এখন গ্রুপের শীর্ষে। শেষ ম্যাচে হার এড়ালেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নক আউট পর্বের মিশন শুরু করবে পর্তুগাল। ড্র করলে চলবে ঘানারও। তিন পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে দুইয়ে। দক্ষিণ কোরিয়া ও উরুগুয়ের পয়েন্ট সমান এক। এই দুটি দল এখন খাদের কিনারায়।

ম্যাচে হ্যাটট্রিক পেতে পারতেন ফার্নান্দেজ। কিন্তু ম্যাচের শেষ মুহূর্তে তার নিচু শটটি ফিরে আসে সাইডবারে লেগে। এ নিয়ে অবশ্য আক্ষেপ নেই পর্তুগিজ তারকার। দুই গোলেই খুশি তিনি। তার প্রথম গোলটা এসেছে ম্যাচের ৫৪ মিনিটে। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে স্পট কিক থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ফার্নান্দেজ।

লুইসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধ আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে কাটলেও ডেডলক ভাঙতে পারেননি কোনো ফুটবলার। উরুগুয়ের পক্ষে সম্ভাব্য সেরা সুযোগটা পেয়েছিলেন রদ্রিগো বেন্তাঙ্কুর। কিন্তু তার দুর্দান্ত শট প্রতিহত করে দেন পর্তুগিজ গোলরক্ষক ডিয়েগো কস্টা। দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফেরার সুযোগ হাতছাড়া করেন ম্যাক্সি গোমেজ।

এ জন্য অবশ্য দুর্ভাগ্যকে দোষারোপ করতে পারেন গোমেজ। তার শট ফিরে আসে পর্তুগালের পোস্টে লেগে। সমতায় ফিরতে মরিয়া উরুগুয়ে শেষ পর্যন্ত গোল পায়নি। বরং ম্যাচের শেষ দিকে পর্তুগালকে পেনাল্টি উপহার দেয় তারা। ডি-বক্সে হ্যান্ডবল করেন ডিফেন্ডার জোসে মারিয়া গিমিনেজ। সুযোগ কাজে লাগায় পর্তুগাল।

এই হারে সুতোয় ঝুলে গেল উরুগুয়ের নক আউট পর্বের স্বপ্ন। শেষ ম্যাচে তাদের জিততে হবে ঘানার বিপক্ষে। শুধু তাই নয়, গ্রুপের অন্য ম্যাচের ফল আসতে হবে অনুকূলে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে হার এড়াতে হবে পর্তুগালের। তবেই মিলবে শেষ ষোলোর টিকিট।

আগের ম্যাচে বিতর্কিত গোল করে ইতিহাস গড়েছিলেন পর্তুগাল অধিনায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কিন্তু উরুগুয়ের বিপক্ষে সুযোগ পেয়েও হাতছাড়া করেছেন তিনি। তাতে অবশ্য জয় আটকায়নি পর্তুগালের। রোনালদোর নিষ্প্রভতা আড়াল করে দিচ্ছেন দলটির তরুণ ফুটবলাররা।