আপনি পড়ছেন

কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের রোমাঞ্চকর ড্র বেশকিছু পটভূমি তৈরি করেছিল। ড্রয়ের পর অন্যতম আকর্ষণ ছিল ‘বি’ গ্রুপ। যেখানে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের সঙ্গে এই গ্রুপে পড়েছিল ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র। খুব স্বাভাবিকভাবেই অনেক দিন ধরে চলা একটা রাজনৈতিক উত্তাপ ছড়িয়েছিল বিশ্বজুড়ে।

iran usaইরান-যুক্তরাষ্ট্র

বহুল প্রতীক্ষিত সেই লড়াইটি মাঠে গড়াচ্ছে আজ। বাংলাদেশ সময় রাত একটায় সবুজ ময়দানি যুদ্ধে অবতীর্ণ হচ্ছে দুই দেশ। এই যুদ্ধ শুরুর আগে মানসিকভাবে অনেকটাই এগিয়ে আছে ইরান। এশিয়ার দলটি আজ হার এড়ালেই নক আউট পর্বের টিকিট পাওয়ার কথা। একটু বিপত্তি অবশ্য আছে।

কারণ দিনের অন্য ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ওয়েলস ও ইংল্যান্ড। এই ম্যাচে যদি চার গোলের ব্যবধানে ওয়েলস জিতে যায় তাহলে ইরান ড্র করলেই কপাল পুড়বে তাদের। যদিও ইংলিশদের বিপক্ষে ওয়েলসের জয়ের আশা করাটাই অমূলক। সেখানে চার গোলের ব্যবধান সেটা তো অলৌকিক একটা ব্যাপার।

ইরান জিতলে অবশ্য অতো সমীকরণে যেতে হবে না। সরাসরি শেষ ষোলোর টিকিট পাবে তারা। কার্যত দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইংল্যান্ড। তিন পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ইরান। দুই ম্যাচেই ড্র করা যুক্তরাষ্ট্রের সংগ্রহ দুই পয়েন্ট। তলানিতে থাকা গ্যারেথ বেলের ওয়েলসের ঘরে আছে এক পয়েন্ট।

ইরান আমেরিকার দ্বন্দ্বে বহুদিন ধরে উত্তাল হয়ে আছে মধ্যপ্রাচ্যে। প্রায় তিন বছর আগে হোয়াইট হাউসের নির্দেশে ইরানের শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা কাশেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়। জবাবে ইরাকে দুটি মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায় তেহরান। সেই হামলা উত্তেজনাকে চরম পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিল।

ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দা-কুমড়া সম্পর্ক অন্তত পাঁচ দশক ধরে চলছে। অনেক দিন ধরেই ইরানের ওপর প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টায় আছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির খনিজ সম্পদ নিয়ন্ত্রণ করতে চায় আমেরিকা। এ ছাড়া পারমাণবিক শক্তি অর্জনের আকাঙ্ক্ষা রয়েছে পশ্চিমা দেশটির। এ নিয়েই চলছে দুই দেশের বিবাদ।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর