আপনি পড়ছেন

বিশ্বকাপের দেশ কাতারে সমকামিতা নিষিদ্ধ। টুর্নামেন্টের আয়োজকরা এ নিয়ে কড়া বার্তা শুরু থেকেই দিয়ে আসছে। তাদের আবার সমর্থন দিয়েছে ফিফা। তাতে চটেছে ইউরোপের সাতটি দল। সমকামী দাবি আদায়ের লক্ষ্যে প্রতিবাদী হয়ে ওঠে তারা। দেশগুলোর অধিনায়কেরা 'ওয়ানলাভ' আর্মব্যান্ড কিংবা জার্সিতে স্টিকার পরে নামার ঘোষণা দেন। তাতে ক্ষেপে আগুন বিশ্ব ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফা।

the uks sports minister stuart andrewস্টুয়ার্ট (ছবিতে ডানে)

'ওয়ানলাভ' মূলত সমকামী অধিকার আদায় আন্দোলনের প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। কোনো দলের অধিনায়ক যদি মাঠে এমন কিছু জার্সিতে পরেন কিংবা আর্মব্যান্ড পরে খেলতে নামেন তাহলে তাকে হলুদ কার্ড দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয় ফিফা। এমনকি ওই অধিনায়ক নিষেধাজ্ঞার ঝুঁকিতে থাকতে পারেন বলেও জানায় ফিফা।

বাইরের বিষয়ে কান না দিয়ে ফুটবলের প্রতি দলগুলোকে মনোনিবেশ হওয়ার আহবান জানায় ফিফা। হুমকি ও পরামর্শের পর আলোচিত সাত অধিনায়ক পিছু হটেন। পাল্টান সিদ্ধান্ত। জার্মানি তো প্রথম ম্যাচের আগে মাঠে অভিনব কায়াদায় প্রতিবাদ জানায়। অফিসিয়াল ফটোসেশনের সময় দলটির সব খেলোয়াড় হাত দিয়ে মুখ ঢেকে রাখে।

নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক ভার্জিল ফন ডাইক জানান, অযথা হলুদ কার্ড দেখে কিংবা নিষিদ্ধ হয়ে দেশ ও জাতীয় দলকে বিপদে ফেলতে চাননি। ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও বেলজিয়াম দলপতি ইডেন হ্যাজার্ড চাপের কারণে 'ওয়ানলাভ' স্টিকার বা বাহুবন্ধনী পরতে পারেননি বলে জানান।

ইংল্যান্ড অধিনায়ক বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলার পর সরাসরি বলে দিয়েছেন, ভয়ের কারণে এটা পরেননি তিনি। খেলোয়াড়দের চাপে রেখে ও হুমকি দিয়ে আন্দোলন বা দাবি থেকে দূরে রাখে ফিফা। কিন্তু অন্যদের ব্যাপারে কোনো বিশেষ বার্তা দেওয়া হয়নি। সেই সুযোগটা নিলেন ইংল্যান্ডের ক্রীড়া মন্ত্রী স্টুয়ার্ট আন্দ্রে।

গতকাল রাতে ইংল্যান্ড-ওয়েলস ম্যাচের সময় গ্যালারিতে স্টুয়ার্টকে 'ওয়ানলাভ' আর্মব্যান্ড পরে থাকতে দেখা যায়। ম্যাচ শুরুর আগ মুহূর্তে ইংল্যান্ডের জাতীয় সঙ্গীতে ঠোঁট মেলানোর সময় তাকে এই অবস্থায় দেখা যায়। মন্ত্রীর এই কাণ্ডকে বাজে একটি বার্তা হিসেবে দেখছেন কাতার প্রশাসন।

এ প্রসঙ্গে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির ক্রীড়া সম্পাদক ড্যান রোয়ানকে স্টুয়ার্ট বলেছেন, 'আমি একটি ব্যতিক্রমী অবস্থানে আছি। একজন ক্রীড়া মন্ত্রী হিসেবে আমাকে প্রত্যেকের প্রতিনিধিত্ব করতে হবে এবং ফিফাকে অনুরোধ করছি তারা যেন বিষয়টি দেখেন। বাইরে অনেক মানুষ আছেন, তারা তাদের দলকে সমর্থন দিতে এসেছেন। কিছু মানুষকে (সমকামীদের) এখানে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।'

উল্লেখ্য এর আগে, জার্মানির শিল্প মন্ত্রী ন্যান্সি ফেজারকে উদ্বোধনী ম্যাচের দিন 'ওয়ানলাভ' আর্মব্যান্ড পরে ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনোর পাশে বসে থাকতে দেখা গেছে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর