আপনি পড়ছেন

ক্লাব প্রতিযোগিতায় দুজনের দেখা নতুন নয়। তবে দেশের হয়ে বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে এবারই প্রথম মুখোমুখি হচ্ছেন লিওনেল মেসি ও রবার্ট লেভানডফস্কি। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা-পোল্যান্ড। দুই মহাতারকার টক্কর দেখার অপেক্ষায় ফুটবলপ্রেমীরা।

messi vs lewandowskiদিনশেষে কে হাসবেন? মেসি না লেভানডফস্কি

কঠিন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে আর্জেন্টিনা। হারলে সোজা বাড়ি আর ড্র করলে চেয়ে থাকতে হবে অন্য ম্যাচের দিকে। অর্থাৎ ড্র হলে পোল্যান্ড চলে যাবে শেষ ষোলোতে। তখন আর্জেন্টিার শেষ ষোলোতে যাওয়া নির্ভর করবে সৌদি আরব-মেক্সিকো ম্যাচের ফলাফলের ওপর। এ ম্যাচের ফলাফল ড্র অথবা মেক্সিকো জিতলে বিশ্বকাপের নকআউট নিশ্চিত করবে আর্জেন্টিনা। আর যদি সৌদি আরব এবং আর্জেন্টিনা উভয়েই তাদের শেষ ম্যাচে জিতে যায় তাহলে তারা উভয়েই নক আউট পর্ব নিশ্চিত করবে। সেক্ষেত্রে বাদ পড়বে পোল্যোন্ড।

এতসব হিসাব নিকাশের মাঝে মেসির পানেই চেয়ে থাকবে আর্জেন্টিনা। দুঃসময়ে তিনিই তো কান্ডারি। সর্বশেষ মেক্সিকোর বিপক্ষে তার জাদুকরী গোলে ম্যাচে ফিরেছিল আকাশি সাদারা। ২০১৮ বিশ্বকাপের বাছাইয়ে আটকে যাওয়া দলকে টেনে তুলেছিলেন তিনি। ডু অর ডাই ম্যাচে ইকুয়েডরের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে সেবার আর্জেন্টিনাকে মূল আসরে খেলার সুযোগ করে দেন মেসি। এরপর মূল মঞ্চে গ্রুপ পর্ব পেরোনোর ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষেও পথ দেখান মেসি। তাইতো আজ পোলিশ যুদ্ধে তিনিই সারথি।

তবে লড়াইটা যে লেভানডফস্কি বনাম মেসি। সেটা বলেই দেওয়া যায়। যদিও ক্লাব ফুটবলে লেভানডফস্কি যতটা না উজ্জ্বল, দেশের হয়ে ততটা মলিন। আর বিশ্বকাপে তো লেভাকে খুঁজেই পাওয়া যায় না। অথচ পোলিশদের প্রাণভোমরা তিনিই। এবারও তার পানে চেয়ে থাকবে পোল্যান্ডের মানুষ। তিনি কি পারবেন ক্লাব ফুটবলের নায়ক থেকে আন্তর্জাতিক ফুটবলের মহানায়ক হতে? সময়ই বলে দেবে সেই উত্তর।

যার বিশ্বকাপ ঝুলিতে নেই বড় কোনো অর্জন। ২০১৮ বিশ্বকাপে দেশের হয়ে তিনটি ম্যাচ খেলেছিলেন। যেখানে কোনো গোলের দেখা মেলেনি। গোল দূরে থাক সতীর্থদের গোলেও সহযোগিতা করতে পারেননি৷ অথচ ক্লাব ক্যারিয়ার গোলের বন্যা বইয়ে দেন। জিতেছেন প্রায় সব ধরনের শিরোপা। মাতিয়েছেন বুন্দেসলিগা।

এখন বার্সেলোনায় চলছে লেভা শো। চলমান মৌসুমে লা লিগায় তার দারুণ ফর্মে ভর করেই ভালো অবস্থানে আছে কাতালানরা। সবমিলে বার্সেলোনার জার্সিতে ১৯ ম্যাচ থেকে করেছেন ১৮ গোল। পুরো ক্লাব ক্যারিয়ারে গোলের সংখ্যাটা ৫২৭। বিশ্বকাপে নয়বার খেলা পোল্যান্ডের সর্বোচ্চ অর্জন ১৯৭৪ ও ১৯৮২ বিশ্বকাপে তৃতীয় হওয়া।

তবে সর্বশেষ ম্যাচে লেভানডফস্কি বিশ্বকাপে গোলের দেখা পেয়েছেন। সৌদি আরবের বিপক্ষে এক গোলে অ্যাসিস্টও করেছেন।