আপনি পড়ছেন

গোলের মালিকানা নিয়ে সংকট সাধারণত তেমন একটা দেখা যায় না। কিন্তু উরুগুয়ের বিরুদ্ধে পর্তুগালের প্রথম গোলটির মালিকানা সংকট কাটছেই না। সবাই একদিকে, রোনালদো থাকছেন আরেকদিকে। এ সংকট সমাধানে এগিয়ে এসেছে বল নিজেই। জানিয়ে দিয়েছে, রোনালদো যতই দাবি করুক না কেন, গোলটি তার নয়। খবর ইন্ডিয়াটুডে।

ronaldo goal 1পর্তুগালের ওই গোল

গ্রুপ পর্বে উরুগুয়ের বিপক্ষে পতুর্গাল প্রথম জালে বল পাঠায় ৫৪ মিনিটে। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের সময় উরুগুয়ের জালের দিকে বল পাঠান ব্রুনো ফার্নান্দেজ। জালের দেখা পাওয়ার আগেই তাতে মাথা ছোঁয়ানোর জন্য লাফ দেন। এরপর বল জালে ঢুকে গেলে নিজস্ব পদ্ধতিতে উৎসবে মাতেন তিনি। ফার্নান্দেজও মনে করেছিলেন গোলটিতে রোনালদোরই অবদান। তিনিও সেইভাবেই প্রতিক্রিয়া দেখান। স্কোর তালিকাতেও গোলের পাশে রোনালদোর নাম লেখা হয়।

কিন্তু ধারাভাষ্যকাররা বলেন ভিন্ন কথা। তারা জানান, গোলটি ফার্নান্দেজর। রিপ্লেতেও দেখা যায়, রোনালদোর মাথায় বল লাগেনি। তাই এ গোলের পূর্ণ দাবিদার ফার্নান্দেজ। পরে তালিকাতেও গোলদাতার নাম পাল্টে দেওয়া হয়।

ball al rihla sensorআল রিহলা- কাতার বিশ্বকাপের অফিসিয়াল বল

তবে বিতর্ক শেষ হয়েও হয়নি রোনালদো তার দাবি প্রত্যাহার না করায়। তিনি দাবি করতে থাকেন গোলটি তারই। কারণ বলটি তার মাথা ছুঁয়েই গোল পোস্টে ঢুকেছে।

এ নিয়ে কয়েকদিন ধরে ব্যাপক তর্ক-বিতর্ক চলার পর তার সমাধানে এগিয়ে আসে আল-রিহলা (বল)। কারণ বিশ্বকাপের বলে এমন প্রযুক্তি লাগানো রয়েছে যা বিশেষ কিছু তথ্য ধারণ করে রাখতে পারে।

বল প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাডিডাস জানিয়েছে, আমাদের যে প্রযুক্তি রয়েছে তা বলছে, ওই গোলের সময় বলে রোনালদোর স্পর্শ লাগেনি। বল গোলের দিকে যাওয়ার সময় যে স্পন্দন আমরা দেখেছি, তাতেও এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, এতে রোনালদোর কোনো রকম ছোঁয়া লাগেনি। আল রিহলা নামের বলটির সেন্সর থেকে আমরা এসব কথা জানতে পেরেছি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর